LalmohanNews24.Com | logo

১২ই আশ্বিন, ১৪২৭ বঙ্গাব্দ | ২৮শে সেপ্টেম্বর, ২০২০ ইং

২৪ ঘন্টা পর বাড়ি ফিরেছে বিপ্লবের দুই স্বজন

২৪ ঘন্টা পর বাড়ি ফিরেছে বিপ্লবের দুই স্বজন

মো. জসিম জনি ও হাসান পিন্টু: ভোলার বোরহানউদ্দিনে ফেসবুক ম্যাসেঞ্জারে বিতর্কিত মন্তব্যের ঘটনায় অভিযুক্ত বিপ্লব চন্দ্র শুভর ভগ্নিপতি বিধান মজুমদার ও চাচাতো ভাই সাগর বৈধ্যকে তুলে নেওয়ার ২৪ ঘন্টা পর মঙ্গলবার রাতে বাড়ি ফিরলো তারা। তাদেরকে গোয়েন্দা বিভাগের লোকজন সোমবার রাতে তুলে নিয়ে যাওয়ার পর মঙ্গলবার রাতে লালমোহনের পশ্চিম চরউমেদ ইউপি সদস্য আশ্রাফুল আলম টুলুর হাতে তুলে দেন র‌্যাব। এ তথ্য নিশ্চিত করেন ইউপি সদস্য আশ্রাফুল আলম টুলু। তিনি জানান, সোমবার রাতে বিধান ও সাগরকে র‌্যাব নিয়ে যায়। ১দিন পরে তাদের জিজ্ঞাসাবাদ করে ছেড়ে দেওয়া হয়। বিপ্লব চন্দ্র শুভর ভগ্নিপতি বিধান মজুমদারের বাড়ি লালমোহন উপজেলার পশ্চিম চরউমেদ ইউনিয়নে।

এদিকে বিধান ও সাগরকে তুলে নিয়ে যাওয়ার বিষয়টি পরিবারের কেউ জানতো না। তাদেরকে খুঁজে না পেয়ে পরিবারের লোকজন দিশেহারা হয়ে পড়ে। তাদের কারা তুলে নিয়েছে সে বিষয়টিও গোপন থাকে। আইনশৃঙ্খলা বাহিনীর কেউ তাদের নিয়ে যাওয়ার বিষয়টি শিকার করেনি। এমনকি ভোলা পুলিশ সুপার সরকার মোহাম্মদ কায়সার সাংবাদিবদের কাছে জানান, পুলিশের কেউ তাদের নেয়নি। শেষ পর্যন্ত বিধানের বাবা বিনয়ভূষণ মজুমদার চরফ্যাশনের দুলারহাট থানায় ২২ অক্টোবর একটি জিডি করেন। যার নং ৭৪৯। মঙ্গলবার রাতে তারা বাড়ি ফিরে আসার পর বুধবার সকালে বিধান মজুমদারের বাড়ি লালমোহন পশ্চিম চরউমেদ ইউনিয়নের নমগ্রামে গিয়ে কথা হয় বিধান ও সাগরের সাথে। বিধান পাশ্ববর্তী চরফ্যাশন উপজেলার আবু বকরপুর ইউনিয়নের রোদেরহাট বাজারে জুয়েলারী দোকান করে। ওই দোকানে থাকে সাগরও।

বিধান জানান, তিনি সোমবার সন্ধ্যা ৭টার দিকে দোকান বন্ধ করার মূহুর্তে দেখেন দোকানের সামনে অপরিচিত কয়েকজন দাঁড়িয়ে আছে। এক পর্যায়ে বিধানকে ডেকে তারা জিজ্ঞেস করে বোরহানউদ্দিনের বিপ্লব তার কি হয়। এ কথা বলেই তাকে ও সাগরকে কালো মাইক্রোবাসে ওঠায়। মাইক্রোবাসে উঠিয়ে চোখ বেঁধে ফেলা হয় বলে তারা জানান। কেড়ে নেওয়া হয় হাতের মোবাইল ফোন। সেখান থেকে ভোলা র‌্যাবের অস্থায়ী কার্যালয়ে নিয়ে যায়। তাদের দফায় দফায় জিজ্ঞাসাবাদ করে বিপ্লব কি হয়?, বিপ্লবের আইডি হ্যাক করেছে কে? এসব প্রশ্ন করা হয়। ২৪ ঘন্টার মধ্যে খাওয়ার সময় ছাড়া তাদের চোখ খোলা হয়নি বলে জানান বিধান। কারো সাথে মোবাইল ফোনে কথাও বলতে দেওয়া হয়নি। মঙ্গলবার রাত ১০ টায় চোখ খুলে তাদের বাড়ি যাওয়ার জন্য কাউকে এসে নিয়ে যেতে বলেন। পরে ইউপি সদস্য আশ্রাফুল আলম টুলু, বিধানের বাবা বিনয় ভূষণ মজুমদার, চাচা দয়াল মজুমদার ও ভগ্নিপতি রাতেই ভোলা গিয়ে র‌্যাবের কাছ থেকে দুজনকে নিয়ে আসেন।

এব্যাপারে ভোলার র‌্যাব-৮ এর ব্যবহারিত মুঠোফোনে চেষ্টা করেও না পাওয়ায় তাদের বক্তব্য নেয়া সম্ভব হয়নি।

তবে দুলারহাট থানার ওসি মিজানুর রহমান পাটওয়ারী বলেন, বিধান আর সাগর নিখোঁজ হয়েছে মর্মে থানায় একটি সাধারণ ডায়েরী করা হয়। তাদের কারা নিয়েছে আর কেনো নিয়েছে সে ব্যাপারে আমরা কিছুই জানিনা। শুনেছি র‌্যাব-৮ এর ভোলা অফিস থেকে বিধান ও সাগরকে তাদের স্বজনরা নিয়ে আসে।

Facebook Comments


যোগাযোগ

বার্তা ও বানিজ্যিক কার্যালয়

লালমোহন, ভোলা

মোবাইলঃ 01712740138

মেইলঃ jasimjany@gmail.com

সম্পাদক মন্ডলি

error: সাইটের কোন তথ্য কপি করা নিষেধ!! মোঃ জসিম জনি