LalmohanNews24.Com | logo

৮ই কার্তিক, ১৪২৮ বঙ্গাব্দ | ২৪শে অক্টোবর, ২০২১ খ্রিস্টাব্দ

লালমোহনে তুচ্ছ ঘটনাকে কেন্দ্র করে প্রতিপক্ষের হামলায় আহত-৫

লালমোহনে তুচ্ছ ঘটনাকে কেন্দ্র করে প্রতিপক্ষের হামলায় আহত-৫

লালমোহন প্রতিনিধি॥ ভোলার লালমোহনে গরু দিয়ে খেশুরি ক্ষেত নষ্ট করাকে বাঁধা দিতে গিয়ে প্রতিপক্ষের হামলায় ৫ জন আহত হয়েছে। গত ১৭ জানুয়ারি বেলা সাড়ে ১১ টার সময় উপজেলার লর্ডহার্ডিঞ্জ ইউনিয়নের ৩ নং ওয়ার্ডের প্যায়ারীমোহন এলাকায় এ ঘটনা ঘটে। হামলায় আহতরা হলেন, মাছুমা বেগম(৫৫), তাছনুর বেগম (২৫), মঞ্জু (৩০), রুহুল আমিন (৬০) ও ফজিলুতুন্নেসা (৪০)। এদের মধ্যে মাছুমা বেগমের অবস্থা আশংকাজনক হওয়ায় লালমোহন সদর হাসপাতাল থেকে তাকে বরিশাল শের-ই বাংলা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে প্রেরণ করা হয়েছে। বর্তমানে তিনি সেখানে চিকিৎসাধীন রয়েছেন। বাকিদের চিকিৎসা শেষে লালমোহন হাসপাতাল থেকে ছাড়পত্র দেওয়া হয়।

জানা যায়, প্যায়ারীমোহন এলাকার হ্যাডকচাঁন মিস্ত্রি বাড়ির মৃত শাহে আলমের ছেলে মনির একই এলাকার মৃত সুলতান আহম্দে এর মেয়ে পিয়ারার বাড়ির পাশে ৪২ শতাংশ জমিতে খেশুরির চাষ করেন। পিয়ারা বিভিন্ন সময় তার গরু দিয়ে সেই সব ফসল নষ্ট করতে থাকে। মনির বার বার পিয়ারাকে বিষয়টি জানিয়ে আসলেও সে কোনো কর্নপাত করেনি। পরে গত ১৭ জানুয়ারি সকালের দিকে মনির তার ক্ষেতের কাছে গিয়ে দেখতে পায় পিয়ারার গরু বিগত দিনের মত সে দিনও তার জমির ফসল নষ্ট করে।

পরে মনির গরু নিয়ে এলাকার বিচারকদের কাছে যাওয়ার চেষ্টা করলে পিয়ারা তার ভাই আব্দুর রবকে খবর দেয়। আব্দুর হোন্ডা দিয়ে ৯ সদস্যর একটি সন্ত্রাসী বাহীনি লাঠিসোটা ও দেশীয় অস্ত্রসহ মোঃ নিরব, জসিম, শাকিল, মিজান, মিলন, আরিফ, আয়েশা, ইসমাইল ও খতেজাকে নিয়ে এসে মনিরের মা মাছুমা বেগম ও স্ত্রী তাছনুরের উপর অর্তকিত হামলা করে। এতে মনিরের আত্মীয় মঞ্জু, রুহুল আমিন ও ফজিলুতুন্নেসা বাধা প্রদান করলে তাদের উপর হামলা চালায় আব্দুর রবের লোকজন। আব্দুর রব বাহীনি হামলার পরে মনিরের ঘরে লুটপাট চালায়।

লুটপাট করে আব্দুর রব বাহীনি চার আনা স্বর্ণের অলংকার, একটি রুপার চেইন, একটি সেম সাং জে-২ মোবাইল ফোনসহ নগদ ৫৬ হাজার টাকা নিয়ে যায় তারা। পরে এলকাবাসী মিলে আব্দুর রব এর সন্ত্রাস বাহীনিকে ধাওয়া করলে তারা একটি প্লাটীনা মটর সাইকেল রেখে পালিয়ে যায়। বর্তমানে মটর সাইকেলটি মনিরের হেফাজতে রয়েছে।

পরে মনির ইউপি চেয়ারম্যান আবুল কাশেম মিয়া ও ওয়ার্ড মেম্বার মিলনকে বিষয়টি অবহিত করেন। তারা এর একটি সুষ্ঠু ফয়সালা করবেন বলে জানান। কিন্তু এঘটনার এখন পর্যন্ত কোনো ফয়সালা পায়নি ভোক্তভোগী পরিবার।

এবিষয়ে লর্ডহার্ডিঞ্জ ইউপি চেয়ারম্যানের কাছে বক্তব্য নেওয়ার জন্য ফোন করা হলে পরে কথা বলবেন বলে তিনি ফোনের সংযোগ বিচ্ছিন্ন করে দেন।

Facebook Comments Box


যোগাযোগ

বার্তা ও বানিজ্যিক কার্যালয়

লালমোহন, ভোলা

মোবাইলঃ 01712740138

মেইলঃ jasimjany@gmail.com

সম্পাদক মন্ডলি

error: সাইটের কোন তথ্য কপি করা নিষেধ!! মোঃ জসিম জনি