LalmohanNews24.Com | logo

২৪শে বৈশাখ, ১৪২৮ বঙ্গাব্দ | ৮ই মে, ২০২১ খ্রিস্টাব্দ

লালমোহনে কলেরা স্যালাইনের সংকট, অতিরিক্ত দামে বিক্রি করায় দুই ফার্মেসীর জরিমানা ॥ আটক তিন

মোঃ জসিম জনি মোঃ জসিম জনি

সম্পাদক ও প্রকাশক

প্রকাশিত : এপ্রিল ১৮, ২০২১, ১৯:৪১

লালমোহনে কলেরা স্যালাইনের সংকট, অতিরিক্ত দামে বিক্রি করায় দুই ফার্মেসীর জরিমানা ॥ আটক তিন

ভোলার লালমোহনে ডায়েরিয়া রোগীদের চিকিৎসার জন্য কলেরা স্যালাইন নিয়ে তুঘলকি কান্ড চলছে। ফার্মেসীগুলোতে উধাও হয়ে গেছে কলেরা স্যালাইন। কোথাও কোথাও কৃত্রিম সংকট তৈরি করে ৯২ টাকার কলেরা স্যালাইন ৪শত টাকায় বিক্রি করা হচ্ছে। এমন অভিযোগ পেয়ে রোববার বিকেলে উপজেলা নির্বাহি অফিসার আল নোমান ও সহকারী কমিশনার (ভূমি) মোঃ জাহিদুল ইসলাম মাঠে নামেন। তারা পৃথক অভিযানে হাসপাতাল সংলগ্ন একটি ফার্মেসী ও উত্তর বাজার মসজিদ রোডের একটি ফার্মেসীতে ২ ব্যবসায়ীর ৬০ হাজার টাকা জরিমানা করেছেন। এছাড়া হাসপাতালের সামনে একটি চায়ের দোকানে সরকারি স্যালাইন বিক্রির অভিযোগে লালমোহন উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সের দুই পরিচ্ছন্নকর্মীসহ ৩জনকে আটক করে থানায় নেওয়া হয়। চা দোকানদার নূরুকে গ্রেফতারে পুলিশ অভিযান অব্যহত রেখেছে।

হাসপাতালের পরিচ্ছন্নকর্মী রাহিমা ও পিয়ারা এ স্যালাইন বিক্রি করে বলে অভিযোগ পাওয়ায় তাদের দুইজনকেও আটক করে থানায় নিয়ে আসা হয়।

লালমোহন হাসপাতালের আবাসিক মেডিকেল অফিসার ডাঃ মহসিন খান জানান, প্রতিদিন প্রায় শতাধিক ডায়েরিয়া রোগী হাসপাতালে ভর্তি হচ্ছে। শনিবার সকাল ৮টা থেকে রোববার সকাল ৭টা পর্যন্ত ১১৫ জন ডায়েরিয়া রোগী ভর্তি হয়েছে। ৫০ শয্যার হাসপাতালে অন্যান্য রোগীদেরই জায়গা হয় না, তার উপর ডায়েরিয়া রোগীদের চাপে হাসপাতালের চিকিৎসক ও নার্সদের অবস্থা জবুথবু। হাসপাতালে জায়গা না থাকায় নিজস্ব বাসা বাড়িতেও বহু ডায়েরিয়া রোগী চিকিৎসা নিচ্ছে। হঠাৎ ডায়েরিয়া রোগী বেড়ে যাওয়ায় কলেরা স্যালাইন সংকট সৃষ্টি হয়েছে। সরকারি সরবরাহ পর্যাপ্ত না থাকায় অধিকাংশ রোগীর স্বজনরা বাইরে থেকে কলেরা স্যালাইন কিনতে হচ্ছে বলে জানান। বাইরে ফার্মেসীতে এ স্যালাইন ৪ শত টাকায় বিক্রি করা হচ্ছে। তবে কয়েকজন ফার্মেসী মালিক জানান, কলেরা স্যালাইন সরবরাহ নেই। কোন কোম্পানিই দিতে পারছে না।

লালমোহন উপজেলা নির্বাহী অফিসার আল-নোমান জানান, স্যালাইনের কৃত্রিম সংকট সৃষ্টি করে অতিরিক্ত দামে বিক্রি করায় হাসপাতালের সামনে ফাতেমা মেডিকেলের রিয়াজকে ৩০ হাজার টাকা ও উত্তর বাজার মসজিদের সামনে আমিন মেডিকেলের মোঃ জামালের ৩০ হাজার টাকা জরিমানা করা হয়েছে। এসময় হাসপাতালের গেটের সামনে নূরুর চায়ের দোকানে সরকারি স্যালাইন পাওয়া যাওয়ায় নুরুর ভাই সবুজকে আটক করা হয়। নুরুকে না পাওয়ায় তাকেও গ্রেফতারের চেষ্টা চলছে। ওই দোকানে হাসপাতালের পরিচ্ছন্নকর্মী রাহিমা ও পিয়ারা এ স্যালাইন বিক্রি করে বলে অভিযোগ পাওয়ায় তাদের দুইজনকেও আটক করে থানায় নিয়ে আসা হয়। তাদের ব্যাপারে রাতে সিদ্ধান্ত নেওয়া হবে জানান ইউএনও আল-নোমান।

Facebook Comments Box


যোগাযোগ

বার্তা ও বানিজ্যিক কার্যালয়

লালমোহন, ভোলা

মোবাইলঃ 01712740138

মেইলঃ jasimjany@gmail.com

সম্পাদক মন্ডলি

error: সাইটের কোন তথ্য কপি করা নিষেধ!! মোঃ জসিম জনি