LalmohanNews24.Com | logo

৩রা বৈশাখ, ১৪২৮ বঙ্গাব্দ | ১৬ই এপ্রিল, ২০২১ খ্রিস্টাব্দ

লালমোহনের চর কচুয়ায় কিশোরীকে ডেকে নেওয়ার পর দুইদিন ধরে নিখোঁজ ॥ উদ্ধারে দিনভর পুলিশের তল্লাসী

লালমোহনের চর কচুয়ায় কিশোরীকে ডেকে নেওয়ার পর দুইদিন ধরে নিখোঁজ ॥ উদ্ধারে দিনভর পুলিশের তল্লাসী

মোঃ জসিম জনি ॥
লালমোহনের বিচ্ছিন্ন চর কচুয়াখালীতে এগারো বছরের কিশোরীকে বুধবার দুপুরে মাছ ধরার কথা বলে মোশারেফ নামে এক যুবক ডেকে নিয়ে যাওয়ার পর থেকে তার কোন সন্ধান পাচ্ছে না বাবা-মা। সাথী নামে ওই কিশোরীকে না পাওয়ায় বাবা-মা থানায় অভিযোগ করে। মঙ্গলবার দিনব্যাপী লালমোহন সার্কেলের সিনিয়র সহকারী পুলিশ সুপার এসএম মিজানুর রহমান ও ভারপ্রাপ্ত ওসি মোঃ শাখাওয়াত হোসেনের নেতৃত্বে পুলিশ চরে তল্লাসী চালায়। সন্ধ্যা পর্যন্ত নিখোঁজ কিশোরীকে উদ্ধার করতে পারেনি পুলিশ। তবে মোশারফকে আটক করে থানায় নিয়ে আসে। সে এ ঘটনায় মুখ খলছে না বলে পুলিশ জানায়। নিখোঁজ কিশোরীর ভাগ্যে কি ঘটেছে তা এখনো জানা যায়নি।
স্থানীয় সূত্র ও পুলিশ জানায়, লালমোহন পশ্চিম চরউমেদ ইউনিয়নের অন্তর্গত তেঁতুলিয়া নদীর বুকে বিচ্ছিন্ন চরকচুয়াখালী আবাসনে বসবাস করা কৃষক আমির হোসেন ও মোর্শেদা বেগমের ১১ বছরের কিশোরী সাথীকে বুধবার দুপুরে পাশর্^বর্তী ঘরের মোশারেফ হোসেন (৩২) মাছ ধরার কথা বলে ডেকে নিয়ে যায়। এরপর থেকে তাকে খুঁজে পাচ্ছে না বাবা-মা। তারা সাথীকে মোশারফ ডেকে নিয়েছে বলে দাবী করে। স্থানীয় একাধিক লোকজন মোশারফের সাথে সাথীকে দেখেছে বলেও পুলিশকে জানায়। মোশারফ চরের কেওড়া বাগানে নিয়ে মোবাইলে ছবিও দেখায় বলে চরের লোকজন জানায়।
লাললমোহন সার্কেলের সিনিয়র সহকারী পুলিশ সুপার এসএম মিজানুর রহমান ঘটনাস্থল থেকে এসে রাত ৮টায় সাংবাদিকদের জানান, অভিযোগ পেয়ে আজ (মঙ্গলবার) চরে গিয়ে দিনব্যাপী বিভিন্ন স্থানে অনুসন্ধান চালানো হয়েছে। নিখোঁজ সাথীর কোন হদিস পাওয়া যায়নি। সাথীর মা মোর্শেদা বেগম বাদী হয়ে অপহরণ মামলা করছে। মোশারফকে আটক করা হলেও সে সাথীকে নেয়নি বলে দাবী করছে। জীজ্ঞাসাবাদ করে তার কাছ থেকে আসল ঘটনা বের করা হবে।

Facebook Comments Box


যোগাযোগ

বার্তা ও বানিজ্যিক কার্যালয়

লালমোহন, ভোলা

মোবাইলঃ 01712740138

মেইলঃ jasimjany@gmail.com

সম্পাদক মন্ডলি

error: সাইটের কোন তথ্য কপি করা নিষেধ!! মোঃ জসিম জনি