LalmohanNews24.Com | logo

৮ই আষাঢ়, ১৪২৮ বঙ্গাব্দ | ২২শে জুন, ২০২১ খ্রিস্টাব্দ

মনপুরা ঘূর্নীঝড় ইয়াসে ৪ সহস্রাীধক বাড়ি ঘর ক্ষতিগ্রস্ত ॥ পানিবন্ধী ২০ হাজার মানুষ ॥ ১শিশু পানিতে পড়ে মৃত্যু

মনপুরা ঘূর্নীঝড় ইয়াসে ৪ সহস্রাীধক বাড়ি ঘর ক্ষতিগ্রস্ত ॥ পানিবন্ধী ২০ হাজার মানুষ ॥ ১শিশু পানিতে পড়ে মৃত্যু

ভোলার মনপুরায় ঘূর্নীঝড় ইয়াসের প্রভাবে জোয়ারের পানি বৃদ্ধি পাওয়ায় উপজেলার ৪ টি ইউনিয়নের মূল ভুখনন্ড থেকে বিচ্ছিন্ন চরাঞ্চল ও বেড়ীবাধেঁর বাহিরে বসবাসরত ৪ সহস্রাধীক ঘরবাড়ীর ব্যাপক ক্ষতিগ্রস্ত হয়েছে। বেড়ীবাঁধ ও পাঁকা সড়ক ভেঙ্গে ১০ গ্রাম প্লাবিত হয়েছে। ২০ হাজার মানুষ পানিবন্ধী । হাজির হাট ইউনিয়নের চরফৈজুদ্দিন গ্রামের ৯ নং ওয়ার্ডের মোঃ লোকমানের ৫ বছরের কন্যা ঘূর্ণীঝড় ইয়াসের প্রভাবে বাতাসের তীব্রতায় পুকুরে পড়ে মুত্যু হয়েছে। জোয়ারের পানির সাথে ভেসে গেছে মৎস্য ঘের ও ৫ শতাধিক পুকুরের মাছ। বিচ্ছিন্ন চরাঞ্চলে জোয়ারের পানির সাথে গবাধি পশু ভেসে যাওয়ার খবর পাওয়া গেছে।

সরেজমিনে গিয়ে দেখা যায়, ১নং মনপুরা ইউনিয়নের বেড়ীবাধেঁর বাহিরে আদর্শ কলনীর ঘরগুলো ঘূর্ণীঝড় ইয়াসের প্রভাবে জোয়ারের পানি ও বাতাসের তীব্রতায় সম্পুর্ন ঘরগুলো বিধ্বস্ত হয়ে গেছে। ঘরের নীচের মাটি জোয়ারে ডেউয়ের আঘাতে মাটি সরে গেছে। বাতাসের তীব্রতায় ঘরের চালের টিন উড়ে গেছে। জোয়ারের পানির সাথে ঘরের সকল জিনসপত্র(মালামাল) ভেসে গেছে। চাউল থেকে শুরু করে কোন জিনিস তাদের এখন ইেন। সহায় সম্বল হারিয়ে এখন তারা নিঃস্ব। ঘরের সামান্য মালামাল(জিনিস) নিয়ে কোথায় যাবেন ,কোথায় রাখবেন সে দুচিন্তা তাদের। ঘরের সামান্য মালামাল যা আছে তা নিয়ে ভ্যানগাড়ী করে সরিয়ে নিতে দেখা গেছে। তাদের চোখে শুধু কান্নার জল/পানি। আমাদের দেখে দৌড়ে এসে বলেন , ভাই আমরা থাকব কোথায় ? বঊ ছেলেমেয়ে নিয়ে রাতে কোথায় ঘুমাবো ? কোথায় খাব ? আামাদের জন্য ঘরের ব্যাবস্থা করে দিন।
আদর্শকলনীর লক্ষন চন্দ্র দাস, রত্নস্বর চন্দ্র দাস, আছিরাম দুদু, অর্জুন চন্দ্র দাস, কেশব চন্দ্র দাস, নৈকল চন্দ্র দাস, শচিরানী দাস ও মিনহাজ এর ঘরগুলো সম্পুর্ন ইয়াসের প্রভাবে বিধ্বস্ত হয়েছে। তারা এখন নিঃস্ব।

এ ছাড়াও উপজেলার ৪টি ইউনিয়নের ৩ শতাধিক বাড়ি ঘর সম্পুর্ন ক্ষতিগ্রস্ত হয়েছে। মুল ভুখন্ড থেকে বিচ্ছিন্ন চরাঞ্চলে বসবাসরত পরিবারগুলো বেশী ক্ষতিগ্রস্ত হয়েছে। কলাতলীচর, কাজীর চর,ডালচর বেড়ীবাধ না থাকায় জোয়ারের পানির তোড়ে সকল ঘরগুলোর ভিটে মাটি সরে গেছে। মৎস্য ঘের ও পুকুরের মাছ জোয়ারের পানির সাথে ভেসে যাওয়ার খবর পাওয়া গেছে। চরে বসবাসরত পরিবারগুলো খুব কষ্টে দিনাতিপাত করছেন। বিশুদ্ধ খাবারের পানির সংকট দেখা দিয়েছে। লোনা পানি পুকুর ভরে গেছে। রান্না-বান্না ও গোছল করতে খুব কষ্ট হচ্ছে। অধিকাংশ কাচা রাস্তাগুলো ভেঙ্গে গেছে। চরাঞ্চলের মানুষ চরম দুর্ভোগ পোহাচ্ছেন।

পজেলা দূর্যোগ ব্যাবস্থাপনা কমিটির সদস্য সচিব ও উপজেলা প্রকল্প বাস্তবায়ন কর্মকর্তা মোঃ ইলিয়াস মিয়া জানান, উপজেলার ৪টি ইউনিয়নের চেয়ারম্যান ও বিভিনন্ন দাপ্তরিক প্রধানগনের মাধ্যমে পাওয়া তথ্য অনুসারে ঘূর্ণীঝড় ইয়াসে ক্ষতিগ্রস্তদের সংখ্যার তালিকা হাতে পেয়েছি। তথ্যানুসারে মনপুরা ৪টি ইউনিয়নে ঘূর্ণীঝড় ইয়াসের প্রভাবে জোয়ারের পানি বৃদ্ধি পাওয়ায় ৩২০ টি বসত ঘর সম্পুর্ন ক্ষতিগ্রস্ত, আংশিক ৩ হাজার ৭শত ৪০টি, গবাদী পশু জোয়ারের পানির সাথে ভেসে গেছে ২৯ টি, শস্যক্ষেত সম্পুর্ন ক্ষতিগ্রস্ত ৫০ হেক্টর, আংশিক ক্ষতিগ্রস্ত ৪৮, বীজতলা ৩ হেক্টর, মসজিদ সম্পুর্ন ১ টি এবং আংশিক ২ টি, পাঁকা সড়ক ১১ কিলোমিটার, হেরিং বন ২ কিলোমিটার, কাঁচা রাস্তা ২৫ কিলোমিটার, ব্রিজ ২ টি, সম্পুর্ন মৎস্য ঘের ও পুকুরের মাছ চলে গেছে ৬৬৫ পুকুরের , গভীর নলকুপ ক্ষতিগ্রস্ত হয়েছে ২ টি।

এ ব্যাপারে উপজেলা নির্বাহী অফিসার মোঃ শমিীম মিঞা বলেন, ঘূর্ণীঝড় ইয়াসের প্রভাবে ক্ষতিগ্রস্ত পরিবারের বিষয়ে উর্ধ্বতন কতৃপক্ষকে অবহিত করেছি। ক্ষতিগ্রস্ত পরিবারের মাঝে খাবার বিতর অব্যাহত রয়েছে।

Facebook Comments Box


যোগাযোগ

বার্তা ও বানিজ্যিক কার্যালয়

লালমোহন, ভোলা

মোবাইলঃ 01712740138

মেইলঃ jasimjany@gmail.com

সম্পাদক মন্ডলি

error: সাইটের কোন তথ্য কপি করা নিষেধ!! মোঃ জসিম জনি