LalmohanNews24.Com | logo

১৯শে শ্রাবণ, ১৪২৮ বঙ্গাব্দ | ৪ঠা আগস্ট, ২০২১ খ্রিস্টাব্দ

ভোলা জেলাকে মাদক মুক্ত করাই আমার প্রদান লক্ষ্য—–এসপি মোঃ মোকতার হোসেন

মোঃ জসিম জনি মোঃ জসিম জনি

সম্পাদক ও প্রকাশক

প্রকাশিত : মার্চ ২৯, ২০১৮, ২৩:৫৬

বিজ্ঞাপন

ভোলা জেলাকে মাদক মুক্ত করাই আমার প্রদান লক্ষ্য—–এসপি মোঃ মোকতার হোসেন

মোঃ ফরিদ উদ্দিন: মাদকের ছোবলে ধ্বংস হচ্ছে দেশ ও জাতি। পরিবারের একজন সদস্য মাদক সেবন করলে তার পুরো পরিবারটি ধ্বংস হয়ে যায়। তার বাস্তব প্রমাণ ঢাকার পুলিশ দম্পত্তির ইউনিভারসিটিতে পড়ুয়া ঐশি মাদকের টাকার জন্য পিতা-মাতাকে হত্যা করতে দ্বিধাবোধ করেনি। বর্তমান সমাজে উরতি বয়সের ছেলে মেয়েরা নেশায় জড়িয়ে পড়ছে। যার ফলে ধ্বংস হচ্ছে পরিবার সমাজ তথা আগামী প্রজন্ম। কারণ আজকের শিশুরা আগামি দিনের ভবিষ্যত।

এ সকল নেশার হাত থেকে বাঁচতে হলে অভিভাবগণ, তথা সমাজের বিভেকবান লোকদের এগিয়ে আসতে হবে। পুলিশের উপর নির্ভর করলেই চলবে না। বরং পুলিশকে সঠিক তথ্য দিয়ে সহযোগিতার হাত ভারাতে হবে। কিন্তু বর্তমান সমাজে দেখা যায় অলিগলিতে মাদক বিক্রি হচ্ছে পুলিশও সোর্স নিয়োগ করে মাদক ব্যবসায়ী কে গ্রেপ্তার করা হচ্ছে। কিন্তু বাস্তবে দেখা যায় সাধারণ মানুষ মুখ খুলতে চান না। যার ফলে মাদকের সমাহার দিন দিন বৃদ্ধি পাচ্ছে। এজন্য সমাজের লোকজন ও দায় এড়াতে পারেন না। এখানে উল্লেখ্য বিভিন্ন দেশ থেকে বর্ডার বেদ করে বাংলাদেশে ডুকছে হিরোইন, ফেন্সিডিল, ইয়াবা সহ বিভিন্ন মাদক দ্রব্য। কিন্তু প্রশ্ন থেকেই যায়। বর্ডার গার্ড কি করছে তারাতো দায় এড়াতে পারেননা না। বর্ডার গার্ডদের নাকের ডগা দিয়ে মাদক আসছে, তারা কি দায়িত্ব পালন করছেন? এক দিকে বর্ডারগার্ড অপর দিকে কোষ্ট গার্ড কে পাকি দিয়ে মাদক আনা নেওয়া কারচ্ছে এদের সবারই নাম জানা শুনা আছে। কিন্ত সবার বিরুদ্ধে ব্যবস্থা নেয়া হয় না, যে সকল মাদক ব্যবসায়ী নাজরানা দেয় না তারাই কেবল বর্ডারে গ্রেপ্তার হয়। অনুসন্ধানে বেরিয়ে আসছে স্থলপথ, নৌপথ এই দুই পথ দিয়ে বাংলাদেশে মাদক ডুকছে, যার ফলে বাস, ট্রেন ও নৌপথে দেশের রাজধানী সহ জেলা পর্যায় অলিগলিতে চলে মাদকের সমাহার। ধ্বংস হচ্ছে আমাদের যুব সমাজ, যার ফলে বদনামের ভাগিদার হচ্ছে জেলা পর্যায়ে পুলিশের। তবে বাস্তব চিত্রে দেখা যায়, ভোলা জেলায় যে ভাবে মাদক কিক্রি হতো এবং পত্র পত্রিকায় দেখা যেত মাদকে ভাসছে ভোলা জেলা। বর্তমান প্রেক্ষাপটে মাদকের সমাহার চোখে পরেনা। কারণ হিসাবে জানা যায় সব কিছুরই অবদান ভোলা জেলা পুলিশ সুপার মোঃ মোকতার হোসেন। অনুসন্ধানে জানা যায় ভোলা পুলিশ সুপার হিসাবে যোগদানের শুরুতে পুলিশ সুপার মোঃ মোকতার হোসেন মাদকের বিরুদ্ধে কোন রকম আপোষ বা ছাড় দিচ্ছেন না, পালন করে যাচ্ছেন মাদকের বিরুদ্ধে জিরো ট্রলারেন্স মাদকের বিরুদ্ধে কোন রকম আপোষ নেই। এ সকল বিষয়ে দেখা যায় প্রতি সপ্তাহে জেলা পুলিশের সদস্যদের নিয়ে মাদক তথা অপরাধীর বিরুদ্ধে বারবার ব্রিফিং দিয়ে যাচ্ছেন। এ ছাড়া কোন পুলিশ সদস্যদের বিরুদ্ধে কোন রকম অনিয়ম, অভিযোগ পেলে সাথে সাথে তার বিরুদ্ধে ব্যবস্থা নিচ্ছেন।
পুলিশ জনগনের বন্ধু পুলিশ জনগনের সেবক তার বাস্তব প্রমাণ দেখিয়ে দিলেন ভোলা পুলিশ সুপার মোঃ মোকতার হোসেন।

Facebook Comments Box


যোগাযোগ

বার্তা ও বানিজ্যিক কার্যালয়

লালমোহন, ভোলা

মোবাইলঃ 01712740138

মেইলঃ jasimjany@gmail.com

সম্পাদক মন্ডলি

error: সাইটের কোন তথ্য কপি করা নিষেধ!! মোঃ জসিম জনি