LalmohanNews24.Com | logo

১৯শে শ্রাবণ, ১৪২৮ বঙ্গাব্দ | ৪ঠা আগস্ট, ২০২১ খ্রিস্টাব্দ

নিষিদ্ধ দিনগুলোতে লালমোহনের জেলেদের অলস সময়

বিজ্ঞাপন

নিষিদ্ধ দিনগুলোতে লালমোহনের জেলেদের অলস সময়

হাসান পিন্টু, বাতির খাল, ধলিগৌরনগর থেকে ফিরে: সারাদেশের ২ টি জেলার মেঘনা ও ভোলার মেঘনা এবং তেঁতুলিয়া নদীতে গত ১ মার্চ থেকে ৩০ শে এপ্রিল পর্যন্ত সকল প্রকার মাছ ধরার উপর নিষেধাজ্ঞা জারি করা হয়েছে। এই দুই মাস অলস সময় পাড় করছেন ভোলার লালমোহন উপজেলার নিবন্ধিত জেলেরা।

উপজেলা মৎস্য অফিস সূত্রে জানা যায়, লালমোহনে প্রায় সাড়ে ১৪ হাজার নিবন্ধীত জেলে রয়েছে। এর মধ্যে উপজেলার ধলিগৌরনগর ইউনিয়নের বাতিড় খাল এলাকায় নিবন্ধিত জেলে রয়েছে প্রায় ৮ শত, যার প্রকৃত সংখ্যা প্রায় দুই হাজারের মত।

বাতির খাল এলাকার জেলে শাহাবুদ্দিন, আলী আজগর ও জুবায়ের হোসেন জানান, এ অবরোধে তাদের চলছে ক্রান্তিকাল। টানা ফোঁড়নে চলছে তাদের সংসার। এ দুর্সময়ে দাদন আর ঋণের চাপে স্পৃষ্ট তারা। তবু স্থানীয় এনজিওগুলো রীতিমত আদায় করে নেন তাদের পাওনা টাকা। এই নিষিদ্ধ সময়ে সরকারিভাবে প্রত্যেক জেলের জন্য প্রতি মাসে ৩০ কেজি করে চালের বরাদ্ধ থাকলেও, এসব চাল প্রকৃত জেলেরা পায় না বলে অভিযোগ তাদের। জেলেদের নামের বরাদ্ধকৃত চাল স্থানীয় প্রভাবশালীরা আত্মসাৎ করে বলেও জানায় তারা।

একই এলাকার জেলে আব্দুর রহিম ও আব্দুর রশিদ জানান, প্রতি বছর বৈশাখের সময় নদীতে আমরা মাছ ধরায় ব্যস্ত থাকতাম এবং আমাদের অনেক লাভ হতো। তবে এবছর সব ধরনের মাছ ধরায় নিষেধাজ্ঞা থাকায় আমাদের খুব ক্ষতি হয়েছে। আমরা দাদন আর ঋণের চাপে দিশেহারা হয়ে পড়েছি। তবে সরকারিভাবে আমাদের জন্য সামান্য যে সহযোগিতা দেওয়া হয় তা আমরা ঠিকমত পাইনা। আমরা চাই সরকারিভাবে আসা বরাদ্ধকৃত চাল যেনো আমাদের মাঝে সঠিকভাবে বন্টণ করা হয়।

একইভাবে নিষিদ্ধ এই সময়ে অলস সময় পাড় করছেন উপজেলার পশ্চিম চর উমেদ ইউনিয়নের তেঁতুলিয়া নদীর জেলেরাও।

Facebook Comments Box


যোগাযোগ

বার্তা ও বানিজ্যিক কার্যালয়

লালমোহন, ভোলা

মোবাইলঃ 01712740138

মেইলঃ jasimjany@gmail.com

সম্পাদক মন্ডলি

error: সাইটের কোন তথ্য কপি করা নিষেধ!! মোঃ জসিম জনি