LalmohanNews24.Com | logo

১৯শে অগ্রহায়ণ, ১৪২৭ বঙ্গাব্দ | ৫ই ডিসেম্বর, ২০২০ খ্রিস্টাব্দ

দিনতিনেক পরই শীতের অনুভূতি বাড়বে

দিনতিনেক পরই শীতের অনুভূতি বাড়বে

রাজধানীসহ দেশের বিভিন্ন স্থানে দুপুর থেকেই গুঁড়ি গুঁড়ি থেকে বিকালে দমকা হাওয়ার সঙ্গে হালকা বৃষ্টি হচ্ছে। এর প্রভাবে দিনতিনেক পরই শীতের অনুভূতি বাড়বে বলে জানিয়েছেন আবহাওয়াবিদরা।

শুক্রবার বিকালে আকাশ অন্ধকার করে ঢাকাসহ দেশের কয়েকটি এলাকায় হঠাৎ বৃষ্টি হয়েছে। পশ্চিমা লঘুচাপের সঙ্গে পূবালী বাতাসের মিশ্রণে ফলে সৃষ্ট গভীর সঞ্চালনশীল মেঘমালা থেকে এই বৃষ্টি হয়। শনিবারও এই আবহাওয়া একই রকম থাকতে পারে। তবে রোববার থেকে আকাশ পরিষ্কার হয়ে যাবে বলে আবহাওয়া অধিদফতর (বিএমডি) জানিয়েছে।

শুক্রবার বিকালে ঢাকায় দেখা গেছে, আকাশ অনেকটাই অন্ধকারাচ্ছন্ন করে বিকাল চারটার পরে শুরু হয় বৃষ্টিপাত। প্রথমে অল্প বৃষ্টি হলেও পরে বেড়ে যায়। ২০ থেকে ২৫ মিনিটের হঠাৎ এই বৃষ্টিতে পথচারীদের পড়তে হয় ভোগান্তিতে। ঢাকার পাশাপাশি খুলনা, রাজশাহী, চট্টগ্রাম, বরিশাল ও সিলেটের বিভিন্ন এলাকায় বৃষ্টি হয়েছে।

আবহাওয়াবিদ মো. আরিফ হোসেন গণমাধ্যমকে বলেন, কোনো লঘুচাপ নেই। তবে পশ্চিমবঙ্গ ও সংলগ্ন এলাকায় লঘুচাপের বর্ধিতাংশের প্রভাবে দেশের কোথাও কোথাও বৃষ্টি হয়েছে। হেমন্তের মাঝামাঝি এই সময়ে শীত এখনও আসেনি, তবে অনুভূতি বাড়িয়ে দেবে এই বৃষ্টি।
এই বৃষ্টি কেটে যাওয়ার পর অন্তত ৩/৪ দিন রাতের তাপমাত্রা কমতে পারে। কোথাও কোথাও সর্বনিম্ন তাপমাত্রা হতে পারে ১০ ডিগ্রি সেলসিয়াস পর্যন্ত। এতে শীতের অনুভূতি বেড়ে যাবে।

আবহাওয়াবিদ ড. মুহম্মদ আবুল কালাম মলি­ক জানান, বর্ষা মৌসুম প্রস্থানের পর বায়ু প্রবাহ দক্ষিণ-দক্ষিণ পশ্চিম থেকে ধীরে ধীরে ঘুরতে থাকে। এই প্রক্রিয়া নভেম্বরের শেষ পর্যন্ত চলে। শীত মৌসুম এলে বায়ু উত্তর-পশ্চিম থেকে প্রবাহিত হয়।

কিন্তু মৌসুমী বায়ুর প্রবাহ ধারা পুরোপুরি ঠিক না হলে পূবালী বায়ুর সঙ্গে দক্ষিণ-পশ্চিমের বায়ুর সংমিশ্রণে গভীর সঞ্চালনশীল মেঘমালা তৈরি হয়ে থাকে। এমন পরিস্থিতি দক্ষিণ-পশ্চিম উপকূল ঘেঁষে হঠাৎ করে বাতাসের অবনমন ঘটে থাকে। বায়ু সামান্য কমে যায়। এছাড়া এই বাতাস ঊর্ধ্ব আকাশে গমনের ফলে যে মেঘমালা তৈরি হয় তাতে এ ধরনের বৃষ্টিপাতের পরিস্থিতি তৈরি করে থাকে।

বিএমডি জানিয়েছে, ডিসেম্বরে বাংলাদেশে শীত শুরু হলেও এর পরিস্থিতি তৈরি হয় নভেম্বরের শেষ সপ্তাহে। এ কারণে আগামী কয়েকদিন তাপমাত্রা হ্রাস পেতে থাকবে। এ সময়ে তেতুলিয়া, দিনাজপুর, রাজশাহী, রংপুর, পাবনা, বগুড়া, কুষ্টিয়া, যশোর, সিলেট, ময়মনসিংহসহ অন্যান্য অঞ্চলের শীতের অনুভূতি বেড়ে যেতে পারে। এসব এলাকার নদনদীতে ভোর রাতের দিকে ঘন কুয়াশা দেখা যেতে পারে। স্থলভাগে ভোর রাত থেকে সকাল ১০টা পর্যন্ত কুয়াশা পড়তে পারে।

Facebook Comments


যোগাযোগ

বার্তা ও বানিজ্যিক কার্যালয়

লালমোহন, ভোলা

মোবাইলঃ 01712740138

মেইলঃ jasimjany@gmail.com

সম্পাদক মন্ডলি

error: সাইটের কোন তথ্য কপি করা নিষেধ!! মোঃ জসিম জনি