LalmohanNews24.Com | logo

২৪শে বৈশাখ, ১৪২৮ বঙ্গাব্দ | ৮ই মে, ২০২১ খ্রিস্টাব্দ

চরফ্যাশনে আওয়ামীলীগ নেতার বিরুদ্ধে ওয়ারিশের  জমি আত্মসাতের অভিযোগ 

চরফ্যাশনে আওয়ামীলীগ নেতার বিরুদ্ধে ওয়ারিশের  জমি আত্মসাতের অভিযোগ 

শাহাবুদ্দিন সিকদার, চরফ্যাশন (ভোলা) প্রতিনিধি: চরফ্যাশনের আহাম্মদপুর  ইউনিয়ন আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক ফরিদ উদ্দিন চাপরাশির  বিরুদ্ধে তাদের ওয়ারিশের  জমি আত্মসাতের অভিযোগ উঠেছ।  তার আপন তিন বোন তারা তাদের বাবার মৃত্যুতে জমির পাওনা সঠিক হিসাব পেতে সমাজ পতিদের দ্বারে দ্বারে ঘুরে কোন সমাধান না পেয়ে নিরুপায় হয়ে গত ১৮ এপ্রিল ২০২১ইং তারিখে বোন সেতারা বেগম  বাদী হয়ে ভাই ফরিদ উদ্দিন চাপরাশি ও শামসুল হক মাস্টার  সহ ৮ জনকে বিবাদী করে দুলারহাট  থানায় অভিযোগ দায়ের করেন। থানা পুলিশ অভিযোগ পেয়ে ঘটনাস্থল হাজিরহাট বাজার সংলগ্ন বিরোধীয়  জমিতে ঘর নির্মাণ ও বাগান বাড়িতে  কাজ বন্ধ রেখে  সালিশের মাধ্যমে বিষয়টির সমাধান করার নির্দেশ  দেন ।
অভিযোগ সূত্রে জানা যায়, উপজেলার নুরাবাদ  ইউনিয়নের সাবেক ৫ নং ওয়ার্ড। বর্তমান  আহাম্মদপুর ইউনিয়নের ১নং  ওয়ার্ডের বাসিন্দা মন্তাজ উদ্দিন ২০/২৫ বছর পূর্বে মৃত্যুবরণ করেন।তার মৃত্যুতে তার ওয়ারিশ  হিসেবে ৮ ছেলে  ৩ মেয়ে  ২ স্ত্রীকে  রেখে যান। মৃত্যুর  পর থেকে সবাই তাদের জমিজমা ভোগদখল করলেও ৩ মেয়েকে ওয়ারিশ হিসেবে তাদের ভাইরা সঠিক পাওনা তাদের বুঝিয়ে দেয় নাই। ওই জমি প্রায় ২০ বছর যাবৎ ফরিদ উদ্দিন, শামসুল হক মাস্টার  সহ ৮ ভাই জবর দখল করেন। তাদের বোন  সেতারা বেগম, চান মেহার, বিবি আছিয়া মিলে ভাইদের কাছে জমি চাইতে গেলে দেই  দিচ্ছি করে তাদেরকে তাড়িয়ে দেয়। অভিযুক্ত ৮০ শতাংশ জমি হলো  বাগানবাড়ি ও হাজিরহাট বাজার সংলগ্ন জমি।  এ সময় হাজিরহাট বাজার সংলগ্ন ভূমিতে ভাই ফরিদ উদ্দিন চাপরাশি লোকজন নিয়ে পাকা ঘর নির্মাণ কাজ  করেন বলে থানা পুলিশের এসআই হেলাল উদ্দিন ঘটনাস্থলে এসে বিষয়টি সমাধান না হওয়া পর্যন্ত কার্যক্রম বন্ধ রাখার নির্দেশ দেন।  বিষয়টি দ্রুত সমাধানের জন্য গত শুক্রবার ২৩ তারিখ ধার্য ছিল।
ওই দিন থানা পুলিশের নির্দেশনা  পাত্তা না দিয়ে  দলের প্রভাব খাটিয়ে তার লোকজন দিয়ে ঘর নির্মাণ কাজ চালিয়ে যাচ্ছে বীরদর্পে।  থানা পুলিশকে পুনরায় জানালে তারা কোনো কর্ণপাত করেনি।
নিরুপায় হয়ে বাদী পক্ষের সেতারা সহ ৩ বোন মিলে চরফ্যাশন উপজেলা আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক নুরুল ইসলাম ভিপি ও উপজেলা পরিষদের চেয়ারম্যান জয়নাল আবেদিন আখন এর  কাছে অভিযোগ করেন। অভিযোগ পেয়ে উপজেলা চেয়ারম্যান সাহেব তাৎক্ষণিক অভিযুক্ত ইউনিয়ন আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক ফরিদ উদ্দিন চাপরাশি কে বিষয়টি সমাধানের জন্য নির্দেশ দেন । গত শুক্রবার বিষয়টি সমাধানের জন্য সালিশি হওয়ার কথা থাকলেও সালিশিতে আসেনি কেউ ।
 বোন সেতারা বেগম সহ ৩ বোন তাদের বাবার জমি পেতে কান্না কন্ঠে বলেন তাহলে কি আমরা আমাদের ওয়ারিশের জমি পাবনা ? আমরা কি সঠিক বিচার পাব না ?
 এ ঘটনার সত্যতা জানতে ভাই ফরিদ উদ্দিন চাপরাশি কে মোবাইলে কল করলে তিনি জানান, প্রায় ত্রিশ চল্লিশ বছর পূর্বে থেকে আমি ও আমার সব ভাইয়েরা মিলে এই জমি ক্রয় সূত্রে মালিক হয়ে ভোগ দখলে আছি। আমাদের নামে বর্তমানে দিয়ারা রেকর্ড হয়েছে। আমাদের বোনরা মিথ্যা অভিযোগ দিয়ে আমাদের হয়রানি করছে। সালিশিতে কাগজ-কলমে যদি তারা জমি পেয়ে থাকে তাহলে আমরা জমি ছেড়ে দেবো।
 দুলারহাট থানা অফিসার ইনচার্জ মোরাদ হোসেন জানান, অভিযোগ পেয়েছি। থানা পুলিশ কাজ বন্ধ করলেও বিবাদীরা  তাদের ঘর নির্মান কার্যক্রম চালিয়ে যাচ্ছে। তাতে আমার করার কিছুই নেই। এটা আদালতের বিষয়।
Facebook Comments Box


যোগাযোগ

বার্তা ও বানিজ্যিক কার্যালয়

লালমোহন, ভোলা

মোবাইলঃ 01712740138

মেইলঃ jasimjany@gmail.com

সম্পাদক মন্ডলি

error: সাইটের কোন তথ্য কপি করা নিষেধ!! মোঃ জসিম জনি