LalmohanNews24.Com | logo

২রা বৈশাখ, ১৪২৮ বঙ্গাব্দ | ১৫ই এপ্রিল, ২০২১ খ্রিস্টাব্দ

চরফ্যাশনের শশীভূষণে প্রেমিকের হাত ধরে প্রবাসীর স্ত্রীর পলায়ন, মামলা

চরফ্যাশনের শশীভূষণে প্রেমিকের হাত ধরে প্রবাসীর স্ত্রীর পলায়ন, মামলা

চরফ্যাশন (ভোলা) প্রতিনিধি: চরফ্যাশনের শশীভূষণে ৩ সন্তানের জননী প্রবাসীর স্ত্রী পরকিয়া প্রেমিকের হাত ধরে ঘর ছেড়ে পালিয়েছে। এ ঘটনায় প্রবাসীর বৃদ্ধ মা মৃত আলী আকবরের স্ত্রী জলেখা খাতুন (৬০) বাদী হয়ে প্রেমিক গিয়াস উদ্দিন (৩৮) সহ ৫ জনকে বিবাদী করে চরফ্যাশন উপজেলা বিজ্ঞ সিনিয়র জুডিসিয়াল ম্যাজিষ্ট্রেট আদালতে মামলা দায়ের করেন। যার নং সিআর ৪৭৩/২০২০ইং। বিজ্ঞ আদালত মামলাটি তদন্ত পূর্বক প্রতিবেদন পাঠানোর জন্য শশীভূষণ থানাকে নির্দেশ দেন। শশীভূষণ থানার অফিসার ইনচার্জ ঘটনার তদন্ত করে প্রতিবেদন দাখিল করেন। গত ১৭/১০/২০২০ইং তারিখে বাদীর নিজ বাড়ীতে ১২ টায় এ ঘটনা ঘটে।
স্থানীয় ও মামলার বিবরণ সূত্রে জানা যায়, রসুলপুর ৬নং ওয়ার্ডের মৃত আলী আকবর মুন্সীর ছেলে আবুল কালাম ২ বছর পূর্বে জীবিকা নির্বাহ করার জন্য দুবাই চলে যায়। যাওয়ার সময় ৩ সন্তান সহ তাহার স্ত্রী সুরমা বেগম (৩৩) কে তার মা জুলেখার জিম্মায় রেখে যায়। পূত্রবধু সুরমা বিশ্বাস ভঙ্গ করে অবাধে চলাফেরা করে। এ নিয়ে অনেক ঝগড়া ঝাটি হয়। ইতোমধ্যে মামলার ১নং বিবাদী রসুলপুর ৬নং ওয়ার্ডের আঃ খালেক হাং এর ছেলে গিয়াস উদ্দিন (৩৮) সাথে পরকিয়ায় জড়িয়ে পড়ে। একপর্যায়ে ওই প্রেমিকের সঙ্গেই গৃহবধু তার ৩ সন্তানসহ পালিয়ে যায়। তবে যাওয়ার আগেই গৃহবধুর ঘরে থাকা মূল্যবান জিনিসপত্র, স্বর্ণালংকার, নগদ টাকা পয়সা সহ প্রায় ২৫ লক্ষ টাকার মালামাল নিয়ে যায় বলে মামলায় উল্লেখ করেন জলেখা। মামলায় পরকিয়া প্রেমিক গিয়াস সহ ৫ জনকে বিবাদী করা হয়েছে।
ওই মামলায় শশীভূষণ থানা পুলিশ তদন্ত প্রতিবেদন ০৩/০১/২১ইং তারিখে চরফ্যাশন সিনিয়র জুডিসিয়াল ম্যাজিস্ট্রেট আদালতে দাখিল করেন। যাহা মিথ্যা ও বানোয়াট বলে প্রতিবেদনে উল্লেখ করেন। বিবাদী জলেখার অভিযোগ শশীভূষণ থানা পুলিশ মোটা অংকের অর্থের বিনিময়ে সত্যকে আড়াল করে মিথ্যা প্রতিবেদন দাখিল করেন। যা উর্ধ্বতন কর্তৃপক্ষের দৃষ্টি কামনা করেন জলেখা।
এছাড়া জলেখার পূত্রবধু সাজেদা (৩৮) কে গত ১৭/১০/২০ ইং তারিখে রাতে গিয়াস উদ্দিন, খোকন হাজারী সহ ৪/৫ জন মিলে ধর্ষনের চেষ্টা করলে তার ডাকচিৎকারে স্থানীয়রা তাকে উদ্ধার করে। এ ঘটনায় সাজেদা খোকন হাজারী ও গিয়াস উদ্দিন সহ ৪/৫ জনকে বিবাদী করে ভোলা জেলা বিজ্ঞ নারী ও শিশু নির্যাতন দমন ট্রাইব্যুনাল আদালতে মামলা দায়ের করে। মামলার কারণে বাদীপক্ষকে বিবাদীরা বিভিন্ন সময়ে মোবাইলে ও প্রকাশ্যে হুমকি ধামকি দিচ্ছে বলে অভিযোগ ওঠে। বর্তমানে তারা নিরাপত্তাহীনতায় ভুগছে। তাই তারা উর্ধ্বতন কর্তৃপক্ষের দৃষ্টি কামনা করছেন।
এ ঘটনায় শশীভূষণ থানা অফিসার ইনচার্জ বলেন, এসআই দেলোয়ার ঘটনাস্থল পরিদর্শন করে প্রতিবেদন দাখিল করেছেন। এব্যাপারে আইনগত ব্যবস্থা গ্রহণ করা হবে।
Facebook Comments Box


যোগাযোগ

বার্তা ও বানিজ্যিক কার্যালয়

লালমোহন, ভোলা

মোবাইলঃ 01712740138

মেইলঃ jasimjany@gmail.com

সম্পাদক মন্ডলি

error: সাইটের কোন তথ্য কপি করা নিষেধ!! মোঃ জসিম জনি