LalmohanNews24.Com | logo

১৭ই অগ্রহায়ণ, ১৪২৯ বঙ্গাব্দ | ২রা ডিসেম্বর, ২০২২ খ্রিস্টাব্দ

কোন বয়সের নারীরা শারীরিক সম্পর্কের জন্য মুখিয়ে থাকেন, জানালো সমীক্ষা

কোন বয়সের নারীরা শারীরিক সম্পর্কের জন্য মুখিয়ে থাকেন, জানালো সমীক্ষা

বছর ৫০ পেরিয়েছে। কিন্তু মনের মধ্যে হাজার চাহিদা যেন উথালপাতাল করছে। অনেকেই ভাবেন ৩০ পেরোনোর পরেই জীবনের সব যেন কেমন বুড়িয়ে যায়। আসলে এটা সম্পূর্ণ তাদের ভুল ধারণা। বরং বয়স বাড়ার সঙ্গে সঙ্গে সমস্ত কিছুই যেন বাড়তে থাকে।

অনেকেই ভাবেন ৫০ পেরানোর পর বা বয়স যখন ৪০-এর কোটায় তখন হয়তো যৌন জীবনের সুখ নেওয়া যায় না। কিন্তু এটা কি জানেন যৌবনের চেয়ে বয়সকালের মিলন অনেক বেশি মধুর হয়। গবেষণাতেও উঠে এসেছে এই তথ্য।

মেনোপজের পর শরীরে অনেক সমস্যা দেখা যায়, গবেষণায় জানা গেছে সেই সমস্ত সমস্যা থেকে মুক্তি দিতে পারে যৌনমিলনই। এতে শরীর ও মন দুইই ফিট থাকে। শরীর ফিট থাকলেই যৌনতার ইচ্ছে জাগে। আর যাদের মনের প্রবল ইচ্ছা থাকে কিন্তু বয়সের দিকে তাকিয়ে সাহস করে উঠতে পারছেন না তারা চিকিৎসকের পরামর্শ নিতে পারেন।

গবেষণায় উঠে এসেছে, ৫০-এর কোটায় বয়স্ক দম্পতিরা মিলনের পর কম বয়সিদের চেয়ে অনেক বেশি তৃপ্তি অনুভব করেন। এর পিছনেও রয়েছে একটা কারণ,এই সময়টাতে যৌবনের মতো অত জোর কারোরই থাকে না যার ফলে এই সময়টাতে আস্তে আস্তে যৌনক্রীড়ায় লিপ্ত হন।

তবে ৫০ পেরিয়ে যৌনসুখ পেতে চাইলে সবার আগে নিজের মানসিকতাকে তিরিশ বছরের পর থেকেই পরিবর্তন করতে হবে। যেমন, কখনোই ভাববেন না শুধু কম বয়সেই যৌন জীবন দারুণ ছিল। বয়স যত বাড়ছে ততই আপনার সেই উদ্দামতা হারিয়ে যাচ্ছে। বয়স বাড়ার সঙ্গে সঙ্গে প্রত্যেকেরই শরীরেই পরিবর্তন হয়। তাই মিলনের আগে নিজের পার্টনারকে আকর্ষনীয় করার চেষ্টা করুন। মিলনের আগের ফোরপ্লের উপর বেশি গুরুত্ব দিন। দেখবেন এতে অনেক বেশি যৌনতাকে উপভোগ করতে পারছেন। শরীর ফিট থাকলেই যৌনতার ইচ্ছে জাগে।

যাদের মনের প্রবল ইচ্ছা থাকে কিন্তু বয়সের দিকে তাকিয়ে সাহস করে উঠতে পারছেন না তারা চিকিৎসকের পরামর্শ নিতে পারেন।

লালমোহননিউজ/ -এইচপি

Facebook Comments Box


যোগাযোগ

বার্তা ও বানিজ্যিক কার্যালয়

লালমোহন, ভোলা

মোবাইলঃ 01712740138

মেইলঃ jasimjany@gmail.com

সম্পাদক মন্ডলি

  • সম্পাদক ও প্রকাশক:

    মোঃ জসিম জনি

    মোবাইল: 01712740138
  • নির্বাহী সম্পাদক: হাসান পিন্টু
  • মোবাইলঃ০১৭৯০৩৬৯৮০৫
  • বার্তা সম্পাদক: মো. মনজুর রহমান