LalmohanNews24.Com | logo

৫ই বৈশাখ, ১৪২৬ বঙ্গাব্দ | ১৮ই এপ্রিল, ২০১৯ ইং

৭০০ টাকার জন্য হত্যা, দেহ দুই টুকরা

৭০০ টাকার জন্য হত্যা, দেহ দুই টুকরা

মাত্র ৭০০ টাকার জন্য ময়মনসিংহের মুক্তাগাছার শাহজাহানকে হত্যা করে গুম করতে দেহ টুকরো হয়। স্বীকারোক্তিতে হত্যাকারী বাবুল এ তথ্য দেন বলে জানিয়েছেন ময়মনসিংহ জেলা পুলিশের এসপি শাহ আবিদ হোসেন।

রোববার দুপুরে ময়মনসিংহ জেলা এসপির কার্যালয়ে সংবাদ সম্মেলনে তিনি এ তথ্য জানান। বাবুলের স্বীকারোক্তির বরাত দিয়ে এসপি জানান, গত ৩১ মার্চ মুক্তাগাছার বানিয়াকাজী গ্রামের একটি পুকুর থেকে শাহজাহান নামে এক যুবকের মাথাবিহীন মরদেহ উদ্ধার করা হয়। এ ঘটনায় ওইদিন নিহতের বড় ভাই  ইসলাম বাদী হয়ে অজ্ঞাতদের আসামি করে মুক্তাগাছা থানায় হত্যা মামলা করেন।

মামলাটি জেলা গোয়েন্দা পুলিশের (ডিবি) কাছে হস্তান্তর করা হয়। শনিবার শাহজাহান হত্যাকাণ্ডের ঘটনায় সন্দেহভাজন হিসেবে বাবুলকে গ্রেফতার করে ডিবি পুলিশ। পরে বাবুলকে ব্যাপক জিজ্ঞাসাবাদ করা হয়। একপর্যায়ে শাহজাহানকে হত্যার কথা স্বীকার করেন বাবুল জানান, শাহজাহানের সঙ্গে বাবুলের পরিচয় দীর্ঘদিনের।

কয়েক মাস আগে শাহজাহানের কাছ থেকে ৭০০ টাকা ধার নেন বাবুল। ৩০ মার্চ রাতে বাবুলের কাছে পাওনা টাকা চান শাহজাহান। এ নিয়ে তাদের মধ্যে তর্ক-বিতর্ক শুরু হয়। একপর্যায়ে বাবুল কিল ঘুষি দিলে শাহজাহান অজ্ঞান হয়ে মাটিতে পড়ে যান। অজ্ঞান শাহজাহানকে কাঁধে করে নিয়ে তাইজুল মাস্টারের মাছের খামারের পাড়ে ফেলে দা দিয়ে শরীর থেকে মাথা বিচ্ছিন্ন করেন বাবুল। পরে শাহজাহানের দেহ তাইজুল মাস্টারের পুকুরে ফেলে দেন। পাশাপাশি শাহজাহানের বিচ্ছিন্ন মাথায় তিন কিলোমিটার দূরে একটি ডোবায় লুকিয়ে রাখেন।

হত্যাকাণ্ডের সাতদিন পর হত্যাকারী বাবুলকে গ্রেফতার করে ডিবি পুলিশ। বাবুলের দেয়া তথ্যের ভিত্তিতে শাজাহানের বিচ্ছিন্ন মাথা উদ্ধার করে পুলিশ। শাজাহান পেশায় একজন রিকশাচালক ছিলেন। তার বাড়ি ময়মনসিংহের মুক্তগাছা উপজেলার গড়বাজাইল গ্রামে। তার বাবার নাম হালিম উদ্দিন।

Facebook Comments


যোগাযোগ

বার্তা ও বানিজ্যিক কার্যালয়

লালমোহন, ভোলা

মোবাইলঃ 01712740138

মেইলঃ jasimjany@gmail.com

সম্পাদক মন্ডলি