LalmohanNews24.Com | logo

১৩ই অগ্রহায়ণ, ১৪২৮ বঙ্গাব্দ | ২৮শে নভেম্বর, ২০২১ খ্রিস্টাব্দ

২০ শয্যা বিশিষ্ট দক্ষিণ আইচা হাসপাতাল ৬ বছরেও আলোর মুখ দেখেনি

২০ শয্যা বিশিষ্ট দক্ষিণ আইচা হাসপাতাল ৬ বছরেও আলোর মুখ দেখেনি

প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার লিখিত আদেশের ৬ বছর পার হলেও দক্ষিণ আইচা ২০ শয্যা বিশিষ্ট হাসপাতাল আলোর মুখ দেখেনি। ফলে চিকিৎসা হীনতায় ভুগছে দক্ষিণ আইচা থানার ৫ ইউনিয়নের মানুষ। ১৯৯৮ সালে আর্থিক সহায়তায় প্রায় ৫ কোটি টাকা ব্যায়ে অত্যাধুনিক যন্ত্রপাতি, আলট্রাসনোগ্রাম,এক্্ররে, ইসিজি, ডেন্টাল ইউনিট ,এ্যাম্বুলেন্স, অপারেশন থিয়েটার,সহ উন্নত চিকিৎসা সেবার লক্ষ্যে নিমার্ন ও স্থাপন করে উক্ত সরকারের অনুদানে ৪জন ডাক্তারসহ প্রয়োজনীয় অবকাঠামো নিয়ে বিভিন্ন প্রতিকুলতার মধ্য দিয়ে শুরু হলেও অনুদান বন্ধ হয়ে যাওয়ার পর থেকে চলছে হাসপাতালটির করুন দশা।

ইতিপুর্বে ২ জন ডাক্তার সরকারী চাকুরী নিয়ে অন্যত্র চলে গেছেন। বর্তমানে ডাক্তার হুমাযুন কবির হাসপাতালে কর্মরত থাকলে তিনি মাসে ২/৩ দিন লালমোহন থেকে ১১ টার সময় এসে দুপুর ১টায় চলে যান। বাকী একজন উচ্চতর ডিগ্রী অর্জনের জন্য বরিশাল ডেপুটেশনে আছেন। বাংলাদেশের বিভিন্ন হাসপাতালে ১৯৯৭ সাল থেকে কর্মরত প্রকল্প কর্তৃক পরিচালিত ১০টি হাসপাতালের কর্মরত৭৮৯জনের বিপরীতে ৫৬০ জন জনবলকে রাজস্ব খাতে স্থানান্তরের প্রস্তাব প্রধান মন্ত্রী ২৬,২,১৩ তারিখে অনুমোদন দিয়েছেন। প্রধানমন্ত্র শেখ হাসিনা প্রস্তাবের পরও ভোলার চরফ্যাশন উপজেলার দক্ষিণ আইচা থানার সৌদি হাসপাতাল আজ পযন্ত রাজস্ব খাতে না যাওয়ার কারনে চিকিৎসা বঞ্চিত হচ্ছে উপকুলীয় এলাকার ৫টি ইউনিয়নের মানুষ।

হাসপাতাল গুলো হলো, নরসিংদীর ১০০শয্যা বিশিষ্ট হাসপাতালে ৯৬ জন , বাংলদেশ কোরিয়া মৈত্রি হাসপাতাল স্থাপন প্রকল্প, সাভার ২২ জন,  জাতীয় এ্যাজমা সেন্টার, মহাখালী, ঢাকা, ৭৫জন কিশোর গঞ্জ ৫০ শয্যা বিশিষ্ট সদর হাসপাতালকে ১০০ শয্যায় উন্নীত করন প্রকল্পে ১৩ জন,  পটুয়াখালী জেলার ৩১ শয্যা বিশিষ্ট দুমকী উপজেলার স্বাস্থ্য কমপ্লেক্স স্থাপন শীর্ষক প্রকল্পে ৪৬ জন, কক্সবাজার জেলার পেকুয়া ২০ শয্যা বিশিষ্ট হাসপাতাল স্থাপন প্রকল্পে ৩২ জন,  ভোলা জেলার চরফ্যাশন উপজেলার দক্ষিণ আইচা থানার ২০ শয্যা বিশিষ্ট হাসপাতাল স্থাপন প্রকল্পে ৩২ জন, জামালপুরের ১০০ শয্যা হাসপাতালকে ২৫০ শয্যা হাসপাতালে উন্নীত করন প্রকল্পে ৭৯ জন, যশোর জেনারেল হাসপাতাল ১০০ শয্যা থেকে ২৫০ শয্যায় উন্নীত করন প্রকল্পে ১৩৩ জন, নোয়াখালী জেলার চর আলগী ২০ শয্যা বিশিষ্ট হাসপাতাল স্থাপন প্রকল্প উক্ত প্রকল্প গুলো ১৯৯৭ সনের ১ জুলাই থেকে চুক্তি ভিত্তিক পরিচালিত হয়ে আসছিল।

চুত্তি শেষে চাকুরীরত জনবলদের আর কর্ম নেই মর্মে গন্য হবে। এমতাবস্থায় কর্মরত জনবলদের চাকুরী রাজস্ব খাতে স্থানান্তর করন সহ চিকিৎসা সেবা নিশ্চিত করনের লক্ষে , সংস্থাপন মন্ত্রালয়ের ২১-০৮- ১৯৭৭ তারিখের সম/সওব্য/টিম-৪(২)/উঃপ্রঃ নি/৪৭/৯৭-১৮৮ নং প্রজ্ঞাপন, অর্থ মন্ত্রালয়ের অর্থ বিভাগের ৯/৯/২০০১ তারিকের অম/অবি/ উবা-১/বিবিধ-৫২/৯৬(অংশ-১)/৩২৪ সংখ্যক , ৩-৭-১৯৯৭ তারিখের অম/অবি/উঃবাঃ-১/ বিবিধ ৫২/৯৬/৩২০ সংখ্যাক এবং ৩০,৯,২০০৪ তারিখের অম/অবি/ উবা-১/বিবিধ-৫২/৯৬(অংশ-)/৭০৭ সংখ্যকপরিপত্রের ব্যত্যয় ঘটিয়ে ৫৬০ পদ সহ জনবলকে রাজস্ব খাতে স্থানান্তরের প্রস্তাব করায় ২৬, ২,১৩ তারিখ প্রধানমন্ত্রী অনুমোদন করেন। উক্ত আদেশের অনুবলে দক্ষিণ আইচা ২০ শয্যা বিশিষ্ট হাসপাতাল ব্যাতিরেকে অন্য গুলো রাজস্ব খাতে রুপান্তরিত হয়ে চিকিৎসা সেবা দিয়ে আসছে।

লালমোহননিউজ/ এইচ.পি

Facebook Comments Box


যোগাযোগ

বার্তা ও বানিজ্যিক কার্যালয়

লালমোহন, ভোলা

মোবাইলঃ 01712740138

মেইলঃ jasimjany@gmail.com

সম্পাদক মন্ডলি

error: সাইটের কোন তথ্য কপি করা নিষেধ!! মোঃ জসিম জনি