LalmohanNews24.Com | logo

৫ই শ্রাবণ, ১৪২৬ বঙ্গাব্দ | ২০শে জুলাই, ২০১৯ ইং

শুধুই ভিটে হারানোর শঙ্কা তাদের!

এম. নয়ন এম. নয়ন

তজুমদ্দিন উপজেলা প্রতিবেদক

প্রকাশিত : জুলাই ০৭, ২০১৯, ১২:২৩

শুধুই ভিটে হারানোর শঙ্কা তাদের!

নূরজাহান বেগম (৩০)। করালগ্রাসী মেঘনার ভয়াল ভাঙনে ৪ বার ভিটে মাটি হারিয়েছেন তিনি। একের পর এক ভিটে হারিয়ে এক সময়ের ধনাঢ্য পরিবারের মেয়েটি এখন স্বামী ও দুই কন্যা শিশুকে নিয়ে মানবেতর জীবন-যাপন করছেন ভোলার তজুমদ্দিন উপজেলার চাঁচড়া ইউনিয়নের বেড়িবাঁধে।

নূরজাহান বেগম বলেন, ৪ বার মেঘনার ভাঙনে সব হারিয়ে এখন বেড়িবাঁধে বসবাস করছি। এক সময় আমাদের অনেক জায়গা-জমি, গরু-মহিষ ছিল। এই রাক্ষুসে মেঘনায় আমাদের সব কেড়ে নিয়েছে। এখনও শঙ্কায় রয়েছি আবারও যদি ভিটে হারাতে হয়। অনেক কষ্ট করে জীবন-যাপন করলেও কেউ খবর নিতে আসে না। একটি চায়ের দোকানে কাজ করা স্বামীর উর্পাজনের ওপর নির্ভর করেই সংসার চলে আমাদের। এ পর্যন্ত সরকারী কোন সহযোগীতা আমরা পাইনি।

অন্যদিকে একই এলাকার মৃত আছমত আলীর ছেলে মো. জেবল হক (৭০)। এক সময় তাদের গোয়াল ভরা গরু/মহিষ ও গোলা ভরা ধান ছিলো। কিন্তু ১৯৭০ সালে প্রথমবার মেঘনার আগ্রাসনে শিকার হয়। পরবর্তীতে ১০ বছর পর দ্বিতীয়বার মেঘনার ভাঙনের কবলে পরে তার পরিবার। তৃতীয়বার আজ থেকে ২৮ বছর আগে সর্বশেষ ভাঙনের কবলে পড়ে সর্বস্ব হারিয়ে বর্তমানে সরকারী বেড়িবাঁধে বসবাস করছেন। পারিবারিক জীবনে জেবল হকের ৩ ছেলে থাকলেও তারা থাকেন চট্টগ্রামে। বাবা-মায়ের খোঁজ-খবর রাখেন না সন্তানরা।

যে কারণে এক সময়ের ধনাঢ্য পরিবারের ছেলে জেবল হক এখন মানুষের কাজ করে নিজের ও স্ত্রীর খাবার জোগান।
জেবল হক বলেন, সন্তানরা আমাদের খোঁজ-খবর না নেয়ায় মানুষের কাজ করে জীবন সংসার পরিচালনা করি। জমি কিনার টাকা না থাকায় বেড়িবাঁধেই থাকি। এখানেও ভাঙনের হুমকিতে রয়েছি, কতদিন থাকতে পারবো তা আল্লাহ’ই ভালো জানেন। তাই সরকারের কাছে দাবী আমাদের জন্য যেনো বাসস্থানের ব্যবস্থা করা হয়।

তজুমদ্দিনে অতিরিক্ত দায়িত্বপ্রাপ্ত নির্বাহী কর্মকর্তা হাবিবুল হাসান রুমি বলেন, সরকার গৃহহীনদের জন্য আশ্রয়স্থলের ব্যবস্থা করছেন। পর্যায়ক্রমে যারা বেড়িবাঁধে মানবতের জীবন-যাপন করছে তাদের জন্যও মাথা গোঁজার জন্য আশ্রয়স্থলের ব্যবস্থা করা হবে।

 

সম্পাদনা: হাসান পিন্টু

Facebook Comments


যোগাযোগ

বার্তা ও বানিজ্যিক কার্যালয়

লালমোহন, ভোলা

মোবাইলঃ 01712740138

মেইলঃ jasimjany@gmail.com

সম্পাদক মন্ডলি