LalmohanNews24.Com | logo

৫ই অগ্রহায়ণ, ১৪২৬ বঙ্গাব্দ | ২০শে নভেম্বর, ২০১৯ ইং

লালমোহনে ভাইরাল ভিডিওর সেই হাসানের অনেক অপকর্ম ॥ আতংকে জসিমের পরিবার

লালমোহনে ভাইরাল ভিডিওর সেই হাসানের অনেক অপকর্ম ॥ আতংকে জসিমের পরিবার

ভোলার লালমোহনে ফেসবুকে ভাইরাল হওয়া দুই সন্তানের সামনে বিবস্ত্র করে নির্যাতনের শিকার জসিমের পরিবার আতংকে আছে। এক বছর আগের ভিডিও ভাইরাল হওয়ার পর নির্যাতনকারী হাসানের বিরুদ্ধে মামলা দায়ের করায় প্রতিনিয়ত হুমকির মধ্যে আছেন জসিম ও তার পরিবার। নির্যাতনের পর রাজনৈতিক মামলায় ৬ মাস জেল হাজতে থাকার পর ভুক্তভোগী জসিম তিন দিন আগে হাইকোর্ট থেকে জামিনে মুক্ত হয়ে বাড়ি ফিরেছেন। বাড়ি আসার পর বৃহস্পতিবার ডাওরী বাজারে গেলে তাকে হাসানের এক সহযোগী হুমকি দেয়। হাসানের বিরুদ্ধে জসিমের স্ত্রীর দায়ের করা মামলা তুলে নিতেও বলে তারা। জসিমকে নির্যাতনকারী হাসানের ৭ দিনের রিমান্ড মঞ্জুর করেছে আদালত। তাকে লালমোহন থানায় এনে রিমান্ডে জিজ্ঞাসাবাদ করবে পুলিশ। তার বিরুদ্ধে চট্টগ্রামের পাহাড়তলী ও হালিশহর থানায় মানব পাচার, ডাকাতি ও চুরির অভিযোগে আরো ৩টি মামলা রয়েছে। এছাড়া গত ১ অক্টোবর ডাওরী বাজারে ব্যবসায়ী জহুরুল ইসলাম মোল্লার বাড়িতে ডাকাতির ঘটনায়ও সন্দেহভাজন আসামী হাসান।
এদিকে জসিমকে প্রকাশ্যে নির্যাতনকারী হাসানের বিরুদ্ধে এলাকায় পাওয়া গেছে আরো নির্যাতনের ভয়াবহ চিত্র। লালমোহন কালমা ইউনিয়নের ২নং ওয়ার্ড কালমা গ্রামের মিস্ত্রী বাড়ির আবুল হোসেনের ছেলে হাসান। থাকতো চট্টগ্রামে। গত জাতীয় নির্বাচনের সময় এলাকায় আসে। ডাওরী বাজারে নিজের অস্তিত্ব প্রমাণের জন্য বেঁচে নেয় বিএনপি কর্মী নিধন অভিযান। নিজেকে ভয়াবহ ক্যাডার প্রকাশের জন্য সে প্রকাশ্যে ডাওরী বাজারে জসিমকে বিবস্ত্র করে লোমহর্ষক নির্যাতন করে। এসময় জসিমের দুই মেয়ে বাবার নির্যাতনের দৃশ্য দেখে আর্তচিৎকার করে কাঁদতে লাগলেও মন গলেনি হাসানের। তারা যত আর্তচিৎকার করে তত লাঠি দিয়ে আঘাত করতে থাকে জসিমকে। এমন ভয়াভহ নির্যাতনের দৃশ্য ভাইরাল হওয়া ভিডিওতে দেখে সাধারণ মানুষ থেকে শুরু করে সর্বস্তরে নিন্দার ঝড় বইতে শুরু করে। ঘটনা প্রায় বছর খানেক আগের হলেও নির্যাতিত জসিমের স্ত্রী ও মেয়েরা ভয়ে কাউকে বলতে পারেনি ওই সময়। এমনকি ওই সময় ভোলাতে চিকিৎসাও করাতে পারেনি। পরে এক আত্মীয়ের সাহায্য নিয়ে জসিমকে ঢাকার একটি ক্লিনিকে ভর্তি করায় অসহায় স্ত্রী ও সন্তানরা। ৬-৭ মাস চিকিৎসার পর ভোলায় ফিরে আসলে একে একে জসিমকে অস্ত্র ও বিস্ফোরক দ্রব্য আইনে, চাঁদাবাজী, মাদকসহ ৫টি মামলায় আসামী করা হয়। এসব মামলায় জসিম ৬ মাস আগে জেল হাজতে যায়। ৩দিন আগে হাইকোর্ট থেকে জামিন নিয়ে জেলমুক্ত হয় জসিম।
সরেজমিনে এলাকা ঘুরে জানা গেছে হাসান শুধু জসিমকেই নির্যাতন করেনি, তার নির্মমতার শিকার ডাওরী বাজারের বিএনপি কর্মী সিরাজ, ফরিদ, বাবুল বিশ্বাসসহ বেশ কয়েকজন। এদের কুপিয়েও জখম করে হাসান। নিজেকে জাহির করতেই হাসান ডাওরী এলাকায় এসব ত্রাস সৃষ্টি করে। চট্টগ্রাম থাকতেও নানান অপরাধমূলক কর্মকান্ড করে হাসান। যার কারণে চট্টগ্রামের দুই থানায় তার বিরুদ্ধে ৩টি মামলা হয়।
জসিম জনান, বৃহস্পতিবার সকালে জসিম ডাওরী বাজারে গেলে, পাঞ্জত আলী নামে এক কাপড় ব্যবসায়ী সন্ত্রাসী হাসানের পক্ষ নিয়ে জসিমকে মারতে তেড়ে আসে। জসিম কোনরকম কথা না বাড়িয়ে ফিরে আসে। ঘটনার সত্যতা জানতে চেয়ে, লালমোহন থানার ওসিকে ফোন দিলে তিনি জানান, বিষয়টি আমি শুনেছি এবং পাঞ্জত আলীকে থানায় ধরে আনতে ডাওরী বাজারে ফোর্স পাঠিয়েছি।

 

Facebook Comments


যোগাযোগ

বার্তা ও বানিজ্যিক কার্যালয়

লালমোহন, ভোলা

মোবাইলঃ 01712740138

মেইলঃ jasimjany@gmail.com

সম্পাদক মন্ডলি

error: সাইটের কোন তথ্য কপি করা নিষেধ!! মোঃ জসিম জনি