LalmohanNews24.Com | logo

২৬শে অগ্রহায়ণ, ১৪২৬ বঙ্গাব্দ | ১১ই ডিসেম্বর, ২০১৯ ইং

লালমোহন পৌরসভার মেয়র কাউন্সিলরদের শপথ কাল

লালমোহন পৌরসভার মেয়র কাউন্সিলরদের শপথ কাল

 

ভোলার লালমোহন পৌরসভার নির্বাচিত মেয়র ও কাউন্সিলরদের শপথ অনুষ্ঠান কাল অনুষ্ঠিত হবে। নির্বাচনের প্রায় ১ মাস পর কাল বুধবার বরিশালে বিভাগীয় কমিশনারের কাছে শপথ নিবেন তারা। এজন্য মেয়র ও কাউন্সিলররা প্রস্তুত রয়েছেন। গত ৩০ অক্টোবর নির্বাচিত প্রার্থীদের গেজেট প্রকাশ হয়।
১৪ অক্টোবর পৌরসভার ১২ ওয়ার্ডে ইলেকট্রনিক ভোটিং মেশিন (ইভিএম) এর মাধ্যমে ভোট গ্রহণ সম্পন্ন হয়েছে। শান্তিপূর্ণ পরিবেশে প্রতিটি কেন্দ্রে ভোট সম্পন্ন হয়। নির্বাচনে প্রতিদ্বন্ধিতা করছেন সর্বমোট ৬২ প্রার্থী, যাদের মধ্যে মেয়র পদে দু’জন, কাউন্সিলর পদে ৪৭ জন এবং সংরক্ষিত নারী কাউন্সিলর পদে ১৩ জন প্রার্থী ছিলেন।
পৌরসভায় ১৯ হাজার ১০০ ভোটের মধ্যে মেয়র পদে ১৩ হাজার ৬২৬ জনে ভোট প্রদান করে। ভোট প্রদানের হার ৭১.৩৪ ভাগ। এর মধ্যে আওয়ামী লীগ সমর্থিত প্রার্থী এমদাদুল ইসলাম তুহিন (নৌকা) পেয়েছেন ১১ হাজার ৩০৩ ভোট। বিএনপি প্রার্থী সোহেল মোঃ আজীজ (ধানের শীষ) পেয়েছেন ২ হাজার ২৬৫ ভোট। ৫৮টি ভোট বাতিল হয়।
১নং ওয়ার্ডে কাউন্সিলর পদে বিনাপ্রতিদ্বন্দ্বিতায় নির্বাচিত হয়েছেন পৌর যুবলীগ সভাপতি ফরহাদ হোসেন মেহের।
২নং ওয়ার্ডে ৩ জন প্রার্থী প্রতিদ্বন্দ্বিতা করেন। এর মধ্যে মোঃ হেলাল উদ্দিন (ডালিম) ৩৮৪ ভোট পেয়ে নির্বাচিত হয়েছে। আনিচল হক (উটপাখি) পেয়েছেন ৩৬২, মো: বজলুর রহমান (পাঞ্জাবি) ৩০৮ ভোট পেয়েছেন।
৩নং ওয়ার্ডে ৮ জন প্রার্থী প্রতিদ্বন্দ্বিতা করেন। এর মধ্যে মো: অহিদুর রহমান মাষ্টার (পানির বোতল) ৩৮৩ পেয়ে নির্বাচিত হন। মো: আজাদ (পাঞ্জাবি) ৩৫৫, মো: শাহাবুদ্দিন (ডালিম) ১৩৮, মো: আব্দুস সাত্তার (ব্লাক বোর্ড) ১২৩, মো: জসিম উদ্দিন ইকবাল (টেবিল ল্যাম্প) ১০৬, মো: রুহুল কুদ্দুস রিয়াজ (ব্রিজ) ৪৭, মো: জাফর (উট পাখি) ৪৩, আবুল বসার (টিউব লাইট) ৩০ ভোট পেয়েছেন।
৪নং ওয়ার্ডে ৩জন প্রার্থী প্রতিদ্বন্দ্বিতা করেন। এর মধ্যে রায়হান মাসুম (ডালিম) ৮২০ ভোট পেয়ে নির্বাচিত হন। মো: মনিরুজ্জামান খোকন (উটপাখি) ৫০৫, মাকছুদ আহমেদ (পানির বোতল) ৫৭ ভোট পেয়েছেন।
৫নং ওয়ার্ডে ২জন প্রার্থী প্রতিদ্বন্দ্বিতা করেন। এর মধ্যে ঈমাম হোসেন হাওলাদার (ডালিম) ৮০২ ভোট পেয়ে নির্বাচিত হন। মো: রিয়াজ উদ্দিন (উটপাখি) ৪৮৯ ভোট পেয়েছেন।
৬নং ওয়ার্ডে ৭জন প্রার্থী প্রতিদ্বন্দ্বিতা করেন। এর মধ্যে জহিরুল ইসলাম মাসুদ পাটোয়ারী (ডালিম) ৫৬০ ভোট পেয়ে নির্বাচিত হন। জয়ন্ত চন্দ পন্টি (পাঞ্জাবি) পেয়েছেন ৩১৮, মো: সিরাজুল ইসলাম পঞ্চায়েত (উটপাখি) ২০৫, রঞ্জয় কুমার দাস (টিউব লাইট) ১৫৩, মো: আব্দুল হালিম আল মামুন (ব্লাকবোর্ড) ১৯১, আল আমিন মামুন (টেবিল ল্যাম্প) ১১২, মো: হুমায়ুন কবীর (পানির বোতল) ১০২ ভোট পেয়েছেন।
৭নং ওয়ার্ডে ৪জন প্রার্থী প্রতিদ্বন্দ্বিতা করেন। এর মধ্যে জাহেদুল ইসলাম নবীন (টেবিল ল্যাম্প) ৫০২ ভোট পেয়ে নির্বাচিত হয়েছেন। মো: রাশেদুল ইসলাম (উটপাখি) ২৫৯, মো: সোহেল আহমেদ (ডালিম) ১৮৯, মো: মিজানুর রহমান হাওলাদার (পানির বোতল) ৪৪ ভোট পেয়েছেন।
৮নং ওয়ার্ডে ৫জন প্রার্থী প্রতিদ্বন্দ্বিতা করেন। এর মধ্যে সাইফুল কবির (টেবিল ল্যাম্প) ৬৮৩ ভোট পেয়ে নির্বাচিত হয়েছেন। জিয়াউল হক জিয়া (ডালিম) ৫৫০, মো: কামরুল আলম মাজেদ (্উটপাখি) ৩৩৩, মো: হাছনাইন (ব্রিজ) ১৯, মো: রাশেদুল ইসলাম (পানির বোতল) ১৮ ভোট পেয়েছেন।
৯নং ওয়ার্ডে ৪জন প্রার্থী প্রতিদ্বন্দ্বিতা করেন। এর মধ্যে আনোয়ার হোসেন হিরণ হায়দার (উটপাখি) ৩৮৬ ভোট পেয়ে নির্বাচিত হন। মো: ইকবাল হোসেন মিঝি (টেবিল ল্যাম্প) ৩১৬, শামছুল আলম মঞ্জু পাটোয়ারি (ডালিম) ২৯৮, সালমা জাহান বুলু (ব্লাক বোর্ড) ৫৮ ভোট পেয়েছেন।
১০ নং ওয়ার্ডে ৩জন প্রার্থী প্রতিদ্বন্দ্বিতা করেন। এর মধ্যে মো: সিরাজ মাতাব্বর (উটপাখি) ৩১৭ ভোট পেয়ে নির্বাচিত হয়েছেন। নিরব হোসেন (ডালিম) ৩০৮, শাহাবুদ্দিন (পাঞ্জাবি) ২৯ ভোট পেয়েছেন।
১১নং ওয়ার্ডে ৫জন প্রার্থী প্রতিদ্বন্দ্বিতা করেন। এর মধ্যে মো: ফরিদ উদ্দিন (ডালিম) ৩৯৮ ভোট পেয়ে নির্বাচিত হয়েছেন। মো: মোখলেছ বকসি (উটপাখি) ৩৩৩, মো: জাকির হোসেন (ঢেঁড়শ) ১৯, মো: সাইদুল ইসলাম মাসুদ (পাঞ্জাবি) ১১, মো: আবুল হাসেম (টেবিল ল্যাম্প) ৭ ভোট পেয়েছেন। অবশ্য মো: জাকির হোসেন, মো: সাইদুল ইসলাম মাসুদ (পাঞ্জাবি) ও মো: আবুল হাসেম মো: ফরিদ উদ্দিনকে নির্বাচনের আগেই সমর্থন করেন।
১২ নং ওয়ার্ডে ৩জন প্রার্থী প্রতিদ্বন্দ্বিতা করেন। এর মধ্যে মো: জসিম উদ্দিন ফরাজী (পাঞ্জাবি) ৬৪৮ ভোট পেয়ে নির্বাচিত হয়েছেন। হারুন (উটপাখি) ৪৪৫, মো: কামাল হোসেন (ডালিম) ৭৪ ভোট পেয়েছেন।
সংরক্ষিত ওয়ার্ড-১ (১,২,৩ নং ওয়ার্ড) : এ ওয়ার্ডে ৪ জন প্রার্থী প্রতিদ্বন্দ্বিতা করেন। এর মধ্যে জান্নাতুল ফেরদাউস (জবাফুল) ১১৭৬ ভোট পেয়ে নির্বাচিত হয়েছেন। ফেরদাউছ আরা (আনারস) ৯৪৯, রোকেয়া বেগম (চশমা) ৪৬৮, সুফিয়া বেগম নাজমা (অটোরিক্সা) ৪৩৩ ভোট পেয়েছেন।
সংরক্ষিত ওয়ার্ড-২ (৪,৫,৬ নং ওয়ার্ড) : এ ওয়ার্ডে ৩ জন প্রার্থী প্রতিদ্বন্দ্বিতা করেন। এর মধ্যে লুৎফা বেগম (অটোরিক্সা) ১৭৭১ ভোট পেয়ে নির্বাচিত হয়েছেন। পারভীন আক্তার (আনারস) ১৭২৫, কাজল রেখা (চশমা) ৮১১ ভোট পেয়েছেন।
সংরক্ষিত ওয়ার্ড-৩ (৭,৮,৯ নং ওয়ার্ড) : এ ওয়ার্ডে ২ জন প্রার্থী প্রতিদ্বন্দ্বিতা করেন। এর মধ্যে দুলি বেগম (আনারস) ১৯৫৮ ভোট পেয়ে নির্বাচিত হয়েছেন। সালমা বেগম (অটোরিক্সা) ১৬৮৮ ভোট পেয়েছেন।
সংরক্ষিত ওয়ার্ড-৪ (১০,১১,১২ নং ওয়ার্ড) : এ ওয়ার্ডে ৪ জন প্রার্থী প্রতিদ্বন্দ্বিতা করেন। এর মধ্যে ফেরদাউস (চশমা) ১৩৮৫ ভোট পেয়ে নির্বাচিত হয়েছেন। ইয়ানুর বেগম (অটোরিক্সা) ৫২৪, কাজল রেখা (জবাফুল) ৪১৩, রাশেদা খানম (আনারস) ২৬১ ভোট পেয়েছেন।

Facebook Comments


যোগাযোগ

বার্তা ও বানিজ্যিক কার্যালয়

লালমোহন, ভোলা

মোবাইলঃ 01712740138

মেইলঃ jasimjany@gmail.com

সম্পাদক মন্ডলি

error: সাইটের কোন তথ্য কপি করা নিষেধ!! মোঃ জসিম জনি