LalmohanNews24.Com | logo

৩রা পৌষ, ১৪২৫ বঙ্গাব্দ | ১৬ই ডিসেম্বর, ২০১৮ ইং

লালমোহনে ৫ম শ্রেণীর ছাত্রীকে গণধর্ষণ, দুই ভাই গ্রেফতার

মোঃ জসিম জনি মোঃ জসিম জনি

সম্পাদক ও প্রকাশক

প্রকাশিত : এপ্রিল ১৯, ২০১৮, ১৭:১১

লালমোহনে ৫ম শ্রেণীর ছাত্রীকে গণধর্ষণ, দুই ভাই গ্রেফতার

মোঃ জসিম জনি ॥
ভোলার লালমোহনে ৫ম শ্রেণীর ছাত্রীকে স্কুল থেকে ডেকে হোগলা বনে নিয়ে গণধর্ষণ করেছে দুই লম্পট। ধর্ষক দুইজন ওই ছাত্রীর চাচা সম্পর্কের এবং পরস্পর খালাতো ভাই। ধর্ষণের পর অজ্ঞান হয়ে পড়লে তাকে বনে রেখেই পালিয়ে যায় লম্পট দুই ভাই। বুধবার ১৮ এপ্রিল দুপুরে উপজেলার কালমা ইউনিয়নের ৩নং ওয়ার্ডে এ ঘটনা ঘটে। ঘটনার পর ছাত্রীর বাবা শামু মাতাব্বর লালমোহন থানায় মামলা দায়ের করে। ধর্ষক ফারুক ৩নং ওয়ার্ডের মেহের আলী মাতাব্বর বাড়ির জয়নাল সিকদারের ছেলে এবং শাহিন একই এলাকার মোঃ সিরাজের ছেল। পুলিশ বৃহস্পতিবার ধর্ষক ফারুক ও শাহিনকে গ্রেফতার করেছে।
ছাত্রীর চাচা শহীদ মাতাব্বর ও চাচী ইয়াসমিন বেগম জানান, উপজেলার কালমা ইউনিয়নের ‘মধ্য কালমা সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়’ এর ৫ম শ্রেণীতে পড়ে ছাত্রীটি। ঘটনার দিন সে স্কুলে দুপুরে বিরতীর সময় দোকানে যায় বিস্কুট কিনতে। এসময় সেখানে থাকা চাচা ফারুক ও শাহিন কয়েকজন ছাত্র-ছাত্রীদের দিয়ে তাকে কাছে ডেকে নেয়। সেখান থেকে অন্যদের পাঠিয়ে দিয়ে ছাত্রীটিকে নিয়ে পাশ্ববর্তী হোগলা বনে নিয়ে যায়। সেখানে জোরপূর্বক প্রথমে ফারুক ও পরে শাহিন ধর্ষণ করে।
ছাত্রী জানান, এক পর্যায়ে ঘটনার সময় সে অজ্ঞান হয়ে পড়ে। জ্ঞান ফেরার পরে স্কুলের মেডামের কাছে গিয়ে ঘঁনা খুলে বলে। পরে সন্ধ্যায় ছাত্রীকে লালমোহন হাসাপাতালে নিয়ে আসে তার স্বজনরা।
এ ঘটনায় ওই ছাত্রীর বাবা শামু মাতাব্বর বাদী হয়ে লালমোহন থানায় মামলা দায়ের করেছে। মামলার পর বৃহস্পতিবার ভোর রাতে এসআই রেজাউলসহ সঙ্গীয় ফোর্স দুই আসামীকে গ্রেফতার করে।
লালমোহন থানার অফিসার ইনচার্জ মীর খাইরুল কবীর জানান, ঘটনার সংবাদ শুনে পুলিশ ওই ছাত্রীকে হাসপাতালে দেখতে যায়। পরে তারা মামলা দায়ের করলে সাথে সাথে অভিযুক্ত ফারুক ও শাহিনকে গ্রেফতার করে আদালতে পাঠানো হয়েছে। ছাত্রীকে ডাক্তারি পরীক্ষার জন্য ভোলা প্রেরণ করা হয়েছে বলেও তিনি জানান।

Facebook Comments


যোগাযোগ

বার্তা ও বানিজ্যিক কার্যালয়

লালমোহন, ভোলা

মোবাইলঃ 01712740138

মেইলঃ jasimjany@gmail.com

সম্পাদক মন্ডলি