LalmohanNews24.Com | logo

১৩ই আষাঢ়, ১৪২৬ বঙ্গাব্দ | ২৬শে জুন, ২০১৯ ইং

লালমোহনে যৌতুকের জন্য গৃহবধূকে নির্যাতন ॥ হাসপাতালে ভর্তি

লালমোহনে যৌতুকের জন্য গৃহবধূকে নির্যাতন ॥ হাসপাতালে ভর্তি

এনামুল হক রিংকু: ভোলার লালমোহনে যৌতুকের দাবীতে এক গৃহ বধূকে নির্যাতনের অভিযোগ পাওয়া গেছে। নির্যাতনের শিকার গৃহবধূ হালিমা বেগম বর্তমানে লালমোহন উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে চিকিৎসাধীন রয়েছে।

জানা যায়, প্রায় আড়াই বছর পুর্বে লালমোহন উপজেলার ফরাজগঞ্জ ইউনিয়নের ৭ নং ওয়ার্ড আবু তাহের মাঝির মেয়ে হালিমার সাথে লালমোহন সদর ইউনিয়নের মুন্সির হাওলা গ্রামের মৃত: আঃ রশিদ মিয়ার ছেলে সবুজের সাথে বিয়ে হয়। বিয়ের পর থেকেই সংসারে অশান্তি দেখা দেয়। এতো কিছুর ভিতরেও সবুজ তার স্ত্রী হালিমাকে কৌশলে ঢাকায় নিয়ে যায়। সেখানে গিয়েই স্ত্রী হালিমাকে চাপ সৃষ্টি ও প্রতিনিয়তদ মারধর করে তার বাবার বাড়ী থেকে যৌতুক আনার জন্য।

বিষয়টি হালিমা তার বাবা আবু তাহেরকে অবহিত করে। মেয়ের সুখের কথা চিন্তা করে বাবা আবু তাহের তার জমি-জমা বিক্রি করে আড়াই বছরে প্রায় ৩ লাখ টাকা দেয় তার জামাতা সবুজকে। এরপরও সবুজ পুন:রায় তার স্ত্রী হালিমাকে চাপ সৃষ্টি করে বাবার বাড়ী থেকে টাকা আনার জন্য। টাকা আনতে অস্বিকৃতি জানালে স্ত্রী হালিমাকে তার বাবার বাড়ীর সকল আত্মীয়-স্বজনের সাথে যোগাযোগ ও তালা বন্ধ করে রাখে। গত দেড় বছর ঢাকায় আটকিয়ে রাখে হালিমাকে।

ইতিমধ্যে হালিমার বাবা ও মা ঢাকায় গেলেও যৌতুকের টাকার জন্য হালিমাকে তাদের সাথে লালমোহন আসতে দেয়নি। এরপরেও বিভিন্ন সময় হালিমা তার বাবার বাড়ি থেকে যৌতুক আনতে অস্বীকৃতি জানালে তাকে মেরে ফেলার হুমকি প্রদান করে।

পরে কোন উপায় না পেয়ে গত ২৯ আগস্ট হালিমা বিভিন্নভাবে নির্যাতনের শিকার হয়ে ঢাকা থেকে পালিয়ে লালমোহন তার বাবার বাড়ীতে আসে। বর্তমানে হালিমা লালমোহন উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে ভর্তি রয়েছেন। এ ঘটনায় হালিমার বাবা প্রশাসনের কাছে এর বিচারের দাবি জানিয়ে বলেন যৌতুক ও নির্যাতনের ঘটনা ধামাচাপা দিতে স্বামী সবুজ নতুন ফন্দি আকছে।

Facebook Comments


যোগাযোগ

বার্তা ও বানিজ্যিক কার্যালয়

লালমোহন, ভোলা

মোবাইলঃ 01712740138

মেইলঃ jasimjany@gmail.com

সম্পাদক মন্ডলি