LalmohanNews24.Com | logo

২রা ভাদ্র, ১৪২৫ বঙ্গাব্দ | ১৬ই আগস্ট, ২০১৮ ইং

যে কোন মুহূর্তে ছাত্রদলের নতুন কমিটি ঘোষণা

প্রকাশিত : আগস্ট ০৮, ২০১৮, ২১:২৭

যে কোন মুহূর্তে ছাত্রদলের নতুন কমিটি ঘোষণা

বিএনপির ভ্যানগার্ড খ্যাত ছাত্রদলের নতুন কমিটি শিগগিরই ঘোষণা করা হতে পারে। অক্টোবরে সরকারবিরোধী আন্দোলন সামনে রেখে সংগঠনটিকে গতিশীল করতেই এই সিদ্ধান্ত নিয়েছে দলটির হাইকমান্ড। ইতিমধ্যে ছাত্রদলের সুপার ফাইভের তালিকাও চূড়ান্ত করা হয়েছে। যে কোন মুহূর্তে ঘোষণা করা হতে পারে বলে দলটির নির্ভরযোগ্য একটি সূত্রে জানা গেছে। ইতিমধ্যে রাজপথের প্রধান প্রতিপক্ষ ছাত্রলীগের কমিটিও ঘোষণা করা হয়েছে। শুধু তাই নয়, বর্তমান ছাত্রদলের মেয়াদোত্তীর্ণ এই কমিটির সঙ্গে ছাত্রলীগের তিনটি কমিটি ঘোষণা করা হয়েছে। ফলে দ্রুতই ঘোষণা করা হবে দুই বছর ধরে মেয়াদোত্তীর্ণ হওয়া ছাত্রদলের নতুন কমিটি।

জানা গেছে, বিএনপির ভারপ্রাপ্ত চেয়ারম্যানের দায়িত্ব পেয়েই দলকে গতিশীল করার চেষ্টা করছেন লন্ডনে অবস্থানরত তারেক রহমান। তাগিদ দিয়েছিলেন বিএনপি ও অঙ্গ-সংগঠনের পুনর্গঠনের। দলের শীর্ষ এই নেতার নির্দেশনার পর ইতিমধ্যে বিএনপির বেশির ভাগ জেলা, মহানগর, থানা ও ওয়ার্ড কমিটি পুনর্গঠন করা হয়েছে। এছাড়া যুবদল, স্বেচ্ছাসেবক দল ও ছাত্রদলের জেলা ও থানা কমিটিও নতুন করে গঠন করা হয়েছে। তবে ছাত্রদলের ছয়টি জেলা কমিটি ঘোষণার বাকি রয়েছে। বাকি কমিটিগুলো ঘোষণার পরপরই ছাত্রদলের কেন্দ্রীয় কমিটি ঘোষণা করা হবে। দলের একটি সূত্র জানিয়েছে, ছাত্রদলের কমিটির জন্যই যুবদল ও স্বেচ্ছাসেবক দল এখনও পূর্ণাঙ্গ করা হয়নি। ছাত্রদলের নতুন কমিটির ঘোষণার পর যেসব নেতা বাদ পড়বেন তাদের যুবদল ও স্বেচ্ছাসেবক দলের নতুন কমিটিতে পদায়ন করা হবে।

তবে ছাত্রদলের নতুন কমিটি ঘোষণা বিলম্বের পেছনে বর্তমান সভাপতি-সেক্রেটারির ইন্ধন রয়েছে বলে অভিযোগ করেছেন পদপ্রত্যাশী কয়েকজন নেতা। তারা জানিয়েছেন, তারেক রহমানের নির্দেশনার পরও জেলা কমিটিগুলো পুনর্গঠনের কাজ শেষ করা হয়নি। অথচ বাকি ছয়টি জেলা কমিটির চূড়ান্ত হয়ে আছে অনেক আগেই। শুধু কেন্দ্রীয় কমিটি ঘোষণা ঠেকাতেই জেলা কমিটিগুলোর ঘোষণা আটকে রাখা হয়েছে। দলটির নীতিনির্ধারণী ফোরামের এক নেতা জানিয়েছেন, এবারের ছাত্রদলের নতুন কমিটি হবে আন্দোলননির্ভর। বিগত আন্দোলন-সংগ্রামে যারা রাজপথে ছিলেন এবং আগামীতেও যারা ঝুঁকি নিয়ে রাজপথে থাকতে পারবেন তাদেরকে দিয়ে নতুন কমিটি করা হবে। লন্ডনে অবস্থানরত দলটির দ্বিতীয় শীর্ষনেতা ইতিমধ্যে কয়েকজন বিশ্বস্ত নেতাকে দিয়ে যাচাই-বাছাইয়ের প্রক্রিয়া শেষ করেছেন। সুপার ফাইভের চূড়ান্ত তালিকাও তিনি তৈরি করে ফেলেছেন। এখন শুধু ঘোষণার অপেক্ষা। ওদিকে ছাত্রদলের নতুন কমিটির পদপ্রত্যাশী নেতারা দৌড়ঝাঁপ শুরু করেছেন। সিনিয়র নেতাদের দিয়ে লন্ডনে তদবির করাচ্ছেন।

তাদের কাছে বিগত আন্দোলনের আমলনামা তুলে ধরছেন। জানা গেছে, বর্তমান সভাপতি রাজীব আহসান, সিনিয়র সহ-সভাপতি মামুনুর রশিদ মামুন ও সাধারণ সম্পাদক আকরামুল হাসানকে বিএনপির জাতীয় নির্বাহী কমিটির সদস্য করা হয়েছে। সেজন্য নতুন কমিটিতে তাদের রাখার সম্ভাবনা খুবই কম। তবে সুপার ফাইভের তালিকায় যাদের নাম শোনা যাচ্ছে তারা হলেনÑ সহ-সভাপতি আলমগীর হাসান সোহান, নাজমুল হাসান, এজমল হোসেন পাইলট, ইখতিয়ার কবির, আবু আতিক আল হাসান মিন্টু, ইসহাক সরকার, ১ম যুগ্ম সম্পাদক আসাদুজ্জামান আসাদ এবং যুগ্ম সম্পাদক কাজী মোকতার, মিয়া মোহাম্মদ রাসেল, বায়েজিদ আরেফিন, নূরুল হুদা বাবু, মফিজুর রহমান আশিক, করিম সরকার, আবুল হাসান, ওমর ফারুক মুন্না।

দলের একটি সূত্র জানিয়েছে, সুপার ফাইভের তালিকায় সবচেয়ে এগিয়ে আছেন ৪২ মামলার আসামি ছাত্রদলের সহ-সভাপতি আলমগীর হাসান সোহান। বিগত আন্দোলনে রাজপথে ভূমিকা রাখায় রাজধানীর গুরুত্বপূর্ণ সবগুলো মামলায় আসামি করা হয় ঢাবির জিয়া হলের সাবেক এই সভাপতিকে। সরকারের রোষানলে পড়ায় বিসিএসে টিকেও যোগ দিতে পারেননি মেধাবী এই ছাত্রনেতা। তাই সিনিয়র সব নেতার গুডবুকে রয়েছে সোহানের নাম। এরপরেই রয়েছেন সাবেক দপ্তর সম্পাদক ও বর্তমান সহ-সভাপতি নাজমুল হাসান। গুম হওয়া নেতাদের পরিবার নিয়ে কাজ করায় তিনিও রয়েছেন তারেক রহমানের গুডবুকে। সুলতান সালাউদ্দিন টুকু বলয়ের নেতা হিসেবে পরিচিত মিয়া মো. রাসেলকে নতুন কমিটির শীর্ষ দুটি পদের একটিতে রাখা হতে পারে।

বিগত আন্দোলনে রাজপথে ভূমিকার কারণে আবু আতিক আল হাসান মিন্টুর নামও রয়েছে সুপার ফাইভের তালিকায়। এছাড়া শতাধিক মামলার আসামি ইসহাক সরকার কিংবা তার অনুসারী কোন নেতাকে রাখা হতে পারে গুরুত্বপূর্ণ পদে। উল্লেখ্য, ২০১৪ সালের ১৪ই অক্টোবর রাজীব আহসানকে সভাপতি ও আকরামুল হাসানকে সাধারণ সম্পাদক করে ছাত্রদলের ১৫৩ সদস্যের আংশিক কমিটি ঘোষণা করা হয়। ২০১৬ সালের ৬ই ফেব্রুয়ারি গঠনতন্ত্র লঙ্ঘন করে ৭৪৩ সদস্যের পূর্ণাঙ্গ কমিটি গঠন করা হয়। ওই বছরের ১৪ই অক্টোবর এই কমিটির মেয়াদোত্তীর্ণ হয়। এরপর গত দুই বছরেও নতুন কমিটি গঠনের উদ্যোগ নেয়া হয়নি।


যোগাযোগ

বার্তা ও বানিজ্যিক কার্যালয়

লালমোহন, ভোলা

মোবাইলঃ 01712740138

মেইলঃ jasimjany@gmail.com

সম্পাদক মন্ডলি