LalmohanNews24.Com | logo

৫ই আশ্বিন, ১৪২৮ বঙ্গাব্দ | ২০শে সেপ্টেম্বর, ২০২১ খ্রিস্টাব্দ

‘মিস ওয়ার্ল্ড বাংলাদেশ’ নিয়ে এত সমালোচনা কেন?

বিজ্ঞাপন

‘মিস ওয়ার্ল্ড বাংলাদেশ’ নিয়ে এত সমালোচনা কেন?

এ বছর তৃতীয়বারের মতো আয়োজিত হয়ে গেল ‘মিস ওয়ার্ল্ড বাংলাদেশ’। এ সুন্দরী প্রতিযোগিতা নিয়ে কয়েক দিন আলোচনা-সমালোচনার ঝড় বয়ে গেছে সামাজিক যোগাযোগমাধ্যমে। সামাজিক মাধ্যমে ভাইরাল যে শব্দ দুটি, তা হলো- H2O এবং Wish। বিশেষ করে H2O তে ভেসে গেছে নিউজফিড। এ নিয়ে সামাজিক মাধ্যমে রসায়নের রসবোধ উপচে পড়ছে। পানির রাসায়নিক সংকেত নিয়ে ফেসবুক রসিকতায় টইটুম্বুর।

বাংলাদেশের একটি জনপ্রিয় টেলিভিশন চ্যানেলে সরাসরি প্রচার করা হয় প্রতিযোগিতার চূড়ান্ত পর্বের আনুষ্ঠানিকতা, যেখানে বিচারকদের সামনে উপস্থিত ছিলেন আসরের সেরা ১০ প্রতিযোগী।

ওই অনুষ্ঠানে বিচারকদের প্রশ্নের উত্তরে দুজন প্রতিযোগীর দেয়া উত্তর নিয়ে সামাজিক যোগাযোগমাধ্যমগুলোয় ব্যাপক সমালোচনা হয়েছে।

সাধারণ জ্ঞান-সংক্রান্ত প্রশ্নে অপ্রাসঙ্গিক উত্তর দেয়ায় এবং বহুল প্রচলিত ইংরেজি শব্দের অর্থ বুঝতে না পারায় অনেকেই ওই দুই প্রতিযোগীকে কটাক্ষ করে মন্তব্য করেছেন।

অধিকাংশই প্রশ্ন তুলেছেন দেশের শীর্ষ এই সুন্দরী প্রতিযোগিতার চূড়ান্ত পর্যায় পর্যন্ত কীভাবে এই প্রতিযোগীরা পৌঁছেছেন তা নিয়ে।

বিচারকদের নির্বাচন কোন ভিত্তিতে করা হলো, সামাজিক মাধ্যমে এমন প্রশ্নও তুলেছেন অনেকে।

তবে এই প্রতিযোগিতার আয়োজক প্রতিষ্ঠান অন্তর শোবিজের কর্ণধার স্বপন চৌধুরী বলেন, এত বড় মাপের অনুষ্ঠানে এই ধরনের ছোটখাটো ঘটনা ঘটা খুবই স্বাভাবিক বিষয়।

প্রশ্নোত্তর পর্বে দুজন প্রতিযোগীর অসংলগ্ন উত্তর দেয়ার বিষয়ে স্বপন চৌধুরী বলেন, স্টেজের ওপর হাজার হাজার অতিথির সামনে সরাসরি সম্প্রচারিত একটি অনুষ্ঠানে অল্পবয়সী একটি মেয়ে এমন ছোটখাটো ভুল করতেই পারে।

গতবছরে এই আসরের বিজয়ী একবার ঘোষণা করেও পরবর্তীতে পরিবর্তন করা হয়, যা সে সময় ব্যাপক সমালোচনা তৈরি করেছিল।

তিনি বলেন, আমাদের এই অনুষ্ঠান আন্তর্জাতিক ‘মিজ ওয়ার্ল্ড’ প্রতিযোগিতার আনুষ্ঠানিক ফ্র্যাঞ্চাইজ, নানা ধরনের সীমাবদ্ধতা ও জটিলতার কারণে আমরা সব সময় আন্তর্জাতিক মানের অনুষ্ঠান না করতে পারলেও প্রতিবছরই এই অনুষ্ঠানের গুণগতমানে উন্নতি হচ্ছে।

স্বপন চৌধুরী জানান, আন্তর্জাতিক নীতিমালা মেনে আসরের বিজয়ী নির্ধারণ করার বাধ্যবাধকতা থাকার কারণে গত বছরে প্রতিযোগিতার বিজয়ীর নাম একবার ঘোষণা করেও পরে পরিবর্তন করা হয়।

মূলধারার গণমাধ্যমে এমন অভিযোগও তোলা হয়েছে যে প্রতিযোগিতার ফলাফল আসলে আয়োজকদের ‘পছন্দমতো আগে থেকেই নির্ধারিত’ থাকে।

এ ধরনের অভিযোগ ওঠায় প্রতিযোগিতা মানুষের কাছে গ্রহণযোগ্যতা হারাচ্ছে কিনা- এ প্রশ্নের জবাবে স্বপন চৌধুরী বলেন, মানুষের কাছে গ্রহণযোগ্যতা হারালে অনুষ্ঠান আন্তর্জাতিক অঙ্গনেও গ্রহণযোগ্যতা হারাত, যা আসলে হয়নি।

তিনি বলেন, আর মানুষ অনুষ্ঠানের ভুলত্রুটি নিয়ে আলোচনা করছে- এটাই প্রমাণ যে মানুষের কাছে অনুষ্ঠানের গ্রহণযোগ্যতা হারায়নি।

অন্তর শোবিজের কর্ণধার আরও বলেন, যেই প্রতিযোগিতার বিজয়ী আন্তর্জাতিক অঙ্গনে বাংলাদেশের প্রতিনিধিত্ব করেন, সেই প্রতিযোগিতা সম্পর্কে এই ধরনের ভিত্তিহীন সমালোচনা না করে গঠনমূলক সমালোচনা করলে লাভবান হবে বাংলাদেশই।

স্বপন চৌধুরী বলেন, গতবছরের আসরে বিজয়ীরা চীনে অনুষ্ঠিত হওয়া চূড়ান্ত ‘মিস ওয়ার্ল্ড’ প্রতিযোগিতায় ১১৮ জন প্রতিযোগীর মধ্যে শীর্ষ ৪০ জনের মধ্যে জায়গা করে নেয়। এবারের প্রতিযোগীও চূড়ান্ত প্রতিযোগিতায় ভালো পারফর্ম করবেন বলে আশা করি।

আগামী বছর থেকে আরও পরিকল্পিতভাবে দীর্ঘ সময়ব্যাপী এই প্রতিযোগিতা আয়োজন করার পরিকল্পনা রয়েছে বলে জানান স্বপন চৌধুরী।

সূত্র: বিবিসি

Facebook Comments Box


যোগাযোগ

বার্তা ও বানিজ্যিক কার্যালয়

লালমোহন, ভোলা

মোবাইলঃ 01712740138

মেইলঃ jasimjany@gmail.com

সম্পাদক মন্ডলি

error: সাইটের কোন তথ্য কপি করা নিষেধ!! মোঃ জসিম জনি