LalmohanNews24.Com | logo

৫ই আশ্বিন, ১৪২৮ বঙ্গাব্দ | ২০শে সেপ্টেম্বর, ২০২১ খ্রিস্টাব্দ

ভোলায় ট্রলার আত্মসাৎ করে মালিককে প্রাণনাশের হুমকি

বিজ্ঞাপন

ভোলায় ট্রলার আত্মসাৎ  করে মালিককে প্রাণনাশের হুমকি

ভোলা জেলার দৌলতখান থানার নুর ইসলামের মালিকানাধীন এম.ভি নূরঅালম নামের একটি ট্রলার একই জেলার  লালমোহন থানার বাসিন্দা মো: সালাউদ্দিন অবৈধ ভাবে আত্মসাৎ  করেছে এবং নিজের নামে লিখে না দিলে  মালিককে প্রাণনাসের হুমকি প্রদানের অভিযোগ উঠেছে।
গত ২০১৬ সালের নভেম্বর মাসে দৌলতখান থানার নুর ইসলাম লালমোহন থানার ফাতেমাবাদ এলাকার মৎস আড়ৎদার সালাউদ্দিন, পিতা-মানিক গোপাল এর নিকট মৌখিক চুক্তিতে তার সামুদ্রিক ট্রলার দিয়ে থাকেন ।
ব্যবসায়িক কথা বলে সামূদ্রীক ট্রলার (এম.ভি নুর আলম) নিয়ে থাকলেও সালাউদ্দিন দীর্ঘদিন যাবৎ ব্যবসা করে মালিককে কোন প্রকার টাকা না দিয়ে উল্টো ট্রলার মালিক মো: নুর ইসলাম এর নিকট  ক্ষতিপূরণ দাবি করে ।
নুর ইসলাম তার সামুদ্রীক ট্রলার আড়ৎদার সালাউদ্দিনকে ব্যবসায়িক কাজের জন্য মৌখিক চুক্তিতে দিলে সালাউদ্দিন দির্ঘদিন ধরে ট্রলারটি দারা অর্থ উপার্জন করে এবং একটা সময় যখন ট্রলার মেরামত করার সময় হয় তখন ট্রলার মালিক নুর ইসলামের নিকট ৩০লাখ টাকা দাবি করে এবং বলে ব্যবসায় লস হয়েছে তাই ট্রলার মেরামত বাবদ ৩০লাখ টাকা আমাকে দিতে হবে।
কিন্তু ট্রলার দ্বারা  ব্যবসা করে যে অর্থ উপার্জন হয়েছে তা থেকে মালিক পক্ষকে কোন প্রকার অর্থ বা হিসেব  না দিয়ে তার পুরাটাই আত্মসাৎ করার অভিযোগ সালাউদ্দিনের বিরুদ্ধে।
এবিষয়ে ভুক্তভোগী নুর ইসলাম মানবাধিকার সংস্থা আইনি সহায়তা কেন্দ্র (আসক) এর নিকট অভিযোগ করলে আসক থেকে সালাউদ্দিনকে সমঝোতায় আসার জন্য বলা হলেও কৌশলে এড়িয়ে যায়।   সালাউদ্দিন বার বার সমঝোতায় আসবে  বলেও আসেনি। উল্টো বিভিন্ন সময় বিভিন্ন ভাবে হুমকি দিতে থাকে নুর ইসলামকে।
নুর ইসলাম জানান, আমার ট্রলার তাকে দিয়েছিলাম মৌখিক ভাবে মাঝি মাল্লা দিয়ে পরিচালনা করার জন্য, কারন আমার শারীরিক অসুস্থতার কারনে দেখা শুনা করতে পারছিলাম না, যে সুযোগে দিনের পর দিন আমাকে মিথ্যা কথা বলে সে ট্রলার দিয়ে অর্থ উপার্জন করেছে  এবং আমাকে বলেছে লস হয়েছে।  লসের কথা বলে আমার কাছে এখন টাকা দাবি করছে । এবং ট্রলারটি তার নামে লিখে না দিলে আমাকে মেরে ফেলার  হুমকিও দিচ্ছে।
নুর ইসলাম আরো জানান, আমার ট্রলারটি মেরামতের জন্য ২০১৭ সালে আমার কাছ থেকে ৫০,০০০(পঞ্চাশ হাজার) টাকা নিয়েও সালাউদ্দিন যথা সময়ে ট্রলারটি  মেরামত না করায়  ট্রলারটির অনেক ক্ষতি হয়েছে যা ঠিক করতে গেলে এখন প্রয়োজন  ৩০লাখ টাকা। আর ২০১৭ মৌসুমে  বাংলাদেশে রেকর্ড পরিমান ইলিশ মাছ ধরা পরেছে তার লভ্যাংশ থেকেও আমি বঞ্চিত হয়েছি।
এ বিষয়ে আড়ৎদার সালাউদ্দিনের সাথে একাধিক বার  যোগাযোগ করার চেস্টা করেও যোগাযোগ করা যায়নি।
Facebook Comments Box


যোগাযোগ

বার্তা ও বানিজ্যিক কার্যালয়

লালমোহন, ভোলা

মোবাইলঃ 01712740138

মেইলঃ jasimjany@gmail.com

সম্পাদক মন্ডলি

error: সাইটের কোন তথ্য কপি করা নিষেধ!! মোঃ জসিম জনি