LalmohanNews24.Com | logo

১৫ই কার্তিক, ১৪২৭ বঙ্গাব্দ | ৩১শে অক্টোবর, ২০২০ ইং

বেড়েই চলেছে লালমোহনে বাজার দর

বেড়েই চলেছে লালমোহনে বাজার দর

ভোলার লালমোহনে তরকারী বাজারে আগুন। প্রতিটি পণ্যের দামই ক্রেতাদের ক্রয় ক্ষমতার বাইরে। প্রায় সব সবজির দামই ৭০ টাকা কেজির নিচে নেই। পটল, কুমরা, বেগুন, পেঁপেসহ নিত্য প্রয়োজনীয় পণ্যগুলো এখন আকাশ ছোঁয়া দাম। কাঁচা মরিচের কেজি ৩০০ টাকা। আলুর কেজি ৫০ টাকায় ছুঁইয়েছে। এ অবস্থায় ক্রেতাদের মাঝে বিরাজ করছে অস্থিরতা। নিম্ন ও মধ্যবিত্ত পরিবারের লোকজনের মধ্যে চরম আতঙ্ক সৃষ্টি হয়েছে।

ভোলার চরফ্যাশনে বিপুল পরিমাণ সবজি উৎপাদন হলেও স্থানীয় পণ্যগুলো ভোলার বাইরে বিক্রি হওয়ায় স্থানীয় বাজারে সবজির দাম বৃদ্ধি পাচ্ছে বলে অভিযোগ ক্রেতাদের। অন্যদিকে এক শ্রেণীর অসাধু ব্যবসায়ী সিন্ডিকেটের মাধ্যমে এ মূল্য বৃদ্ধি করেন বলেও ক্রেতাদের অভিযোগ। বাজারে কোন মনিটরিং না থাকায় আড়ৎদার ও দোকানদারা তাদের ইচ্ছামতো পণ্যের দাম বৃদ্ধি করছে। তবে দোকানদাররা বলছেন, ঢাকার আড়তে দাম বৃদ্ধির কারণে তাদের বেশি দামে পণ্য কিনতে হয়।

সরেজমিন লালমোহন কাঁচা বাজার ঘুরে দেখা যায়, বেগুন, পটল, আরকি, মুলা, শশা, করলা, কুমড়া ইত্যাদি ৬০ থেকে ৭০ টাকা কেজি বিক্রি হচ্ছে। গাজরের কেজি ১০০ টাকা। কাঁচা মরিচের কেজি ৩০০ টাকা। ডিমের দামও বৃদ্ধি। হাঁসের ডিম হালি ৫৫ টাকা ও লেয়ার মুরগির ডিম ৩৬ টাকা হালি।

লালমোহন বাজারে কেনাকাটা করতে আসা দেলোয়ার হোসেন বলেন, এখানে বাজার ব্যবস্থাপনাটা আসলে খুবই বাজে একটা অবস্থা। কোন মনিটরিং নেই। এখানে প্রত্যেক পণ্যের দাম বেশি। এখানকার বাজার ব্যবসায়ীরা সব আড়ৎমুখি। অথচ পাশ্ববর্তী বাজারে পণ্যের দাম অনেক কম। আমরা নিরুপায় হয়ে এখান থেকে বাজার করি।

মোঃ সুমন নামে আরেকজন ক্রেতা জানান, তরকারী বাজারে আগুন। স্থানীয় সবজি উৎপাদন হলেও এখানে প্রতিটি পণ্যের দাম বৃদ্ধি। আমরা নিম্নবৃত্ত যারা আছি তাদের ক্রয় ক্ষমতার বাইরে। তরকারী কিনতে এলে ২০০ থেকে ৩০০ টাকা লাগে।

ইব্রাহিম আকাশ জানান, আমরা দিন আনি দিন খাই। যে টাকা উপার্জন করি সেটা দিয়ে কোনোরকম পরিবার পরিজন দিয়ে দিনযাপন করি। কিন্তু আজ বাজারে এসে দেখি হঠাৎ করে নিত্য প্রয়োজনীয় সামগ্রীর মূল্য লাগামহীনভাবে বেড়ে গেছে। এভাবে বাড়তে থাকলে আমাদের মত নিম্ন আয়ের লোকজন না খেয়েই মারা যাবো।

আড়ৎদার আযুব আলী জানান, আমরা ঢাকা শ্যামবাজার থেকে মালামাল আনি। সেখানে দাম বেশি। তাছাড়া লঞ্চ যোগে আনতে হয়। ভাড়া বেশি পড়ে। এসব কারণে আমাদেরও বেশি দামে বিক্রি করতে হয়।

 

Facebook Comments


যোগাযোগ

বার্তা ও বানিজ্যিক কার্যালয়

লালমোহন, ভোলা

মোবাইলঃ 01712740138

মেইলঃ jasimjany@gmail.com

সম্পাদক মন্ডলি

error: সাইটের কোন তথ্য কপি করা নিষেধ!! মোঃ জসিম জনি