LalmohanNews24.Com | logo

২০শে শ্রাবণ, ১৪২৮ বঙ্গাব্দ | ৪ঠা আগস্ট, ২০২১ খ্রিস্টাব্দ

বিকাশে প্রতারক নারীর ফাঁদ

মোঃ জসিম জনি মোঃ জসিম জনি

সম্পাদক ও প্রকাশক

প্রকাশিত : এপ্রিল ০৭, ২০১৮, ২০:৪৩

বিজ্ঞাপন

বিকাশে প্রতারক নারীর ফাঁদ

মোঃ জসিম জনি ॥
বিকাশে এবার প্রতারক নারীরাও ফাঁদ পেতেছে। বিভিন্ন অজুহাত দিয়ে মোবাইল ফোনে টাকা চেয়ে বসছে এই চক্রটি। পরিচিত সেজে সুকৌশলে নিজের অসুস্থ্যজণিত সমস্যা দেখিয়ে জরুরী টাকা লাগবে এমন কথা বলে টাকা আদায়ের মিশনে নেমেছে চক্রটি। এধরণের একটি ঘটনা শুক্রবার ঘটে গেছে লালমোহন করিমুন্নেছা-হাফিজ মহিলা ডিগ্রী কলেজের ইংরেজি বিভাগের প্রভাষক জুলফিকার আহমেদ খোকনের সাথে। অবশ্য শেষ পর্যন্ত তিনি প্রতারণার বিষয়টি ধরতে পারায় টাকা দেননি। তবে বিষয়টি তিনি সবার সাথে শেয়ার করেছেন যাতে এ প্রতারণা থেকে সবাই সতর্ক থাকতে পারে।
জানতে চাইলে জুলফিকার স্যার জানান, শুক্রবার সকাল সাড়ে ১০টার দিকে ০১৭৫৫-৪৯৮৯৫০ নম্বর থেকে একটা ফোন আসে তার মোবাইলে। ফোন ধরলে একজন মেয়ের কন্ঠে বলা হয় সে খুব অসুস্থ্য লালমোহন হাসপাতালে ভর্তি আছে এবং এখনি কিছু টাকা লাগবে। টাকা না পেলে সে চিকিৎসা করাতে পারবে না। ওই মেয়ে প্রথমে নিজের নাম না বলায় স্যার নাম জিজ্ঞেস করলে বলে, ‘আপনি আমায় চিনেন না স্যার’। পরে তিনি নিজের কলেজের ছাত্রী মনে করে রিমি কিনা জিজ্ঞেস করেন। এতে ওই মেয়ে হ্যা সূচক উত্তর দিয়ে নিজেকে রিমি দাবী করে। এসময় রিমি পরিচয়ের ওই মেয়ে এখনি ১০ হাজার টাকা প্রয়োজন বলে জানায়। জুলফিকার স্যার তাৎক্ষণিক টাকা নেই বললেও সে অনুনয় বিণয় করে। পরে ৫ হাজার টাকা দিতে রাজী হলে ওই টাকা বিকাশে পাঠাতে বলে মেয়েটি। বিকাশের কথা শুনে সন্দেহ হয় জুলফিকার স্যারের। তিনি কলেজের ছাত্রী রিমির মোবাইল নম্বর সংগ্রহ করে তাকে ফোন দিলে সে টাকা চায়নি বলে জানায়। এতে প্রতারণার রহস্যটি বুঝতে পারে জুলফিকার স্যার। তিনি আবার ওই প্রতারক মেয়েকে ফোন দিয়ে হাসপাতালে গিয়ে সরাসরি নিজের হাতে টাকা দিতে চাইলে মেয়েটি আর ফোন ধরেনি।
জুলফিকার স্যার জানান, বিষয়টি প্রতারণা। এমন করে হয়তো এরা অনেকের কাছ থেকে টাকা আদায় করে নিবে। তাই বিষয়টি জেলা পুলিশ সুপারকে জানিয়েছেন তিনি।

Facebook Comments Box


যোগাযোগ

বার্তা ও বানিজ্যিক কার্যালয়

লালমোহন, ভোলা

মোবাইলঃ 01712740138

মেইলঃ jasimjany@gmail.com

সম্পাদক মন্ডলি

error: সাইটের কোন তথ্য কপি করা নিষেধ!! মোঃ জসিম জনি