LalmohanNews24.Com | logo

৩রা আষাঢ়, ১৪২৬ বঙ্গাব্দ | ১৬ই জুন, ২০১৯ ইং

প্রযুক্তির চাদরে মোড়া এবারের বিশ্বকাপ

প্রযুক্তির চাদরে মোড়া এবারের বিশ্বকাপ

প্রথম বিশ্বকাপ যখন ইংল্যান্ডে বসেছিল তখন ইংল্যান্ডের রানী ছিলেন দ্বিতীয় এলিজাবেথ। গত ৩০ মে যখন ইংল্যান্ডে বিশ্বকাপের দ্বাদশ আসরটি বসতে যাচ্ছে তখনও ইংল্যান্ডের রানী দ্বিতীয় এলিজাবেথ। কালের বিবর্তনে রানী একই আছে কিন্তু ক্রিকেট যে তার বয়সের তুলনায় বহুগুণ এগিয়ে গিয়েছে সেটা কল্পনাতীত। বর্তমান শতককে বলা হয় প্রযুক্তির শতক। এমন অবস্থায় পৃথিবীর প্রতিটা ক্ষেত্রেই লেগেছে প্রযুক্তির ছোঁয়া। ক্রিকেট বিশ্বকাপও এর ব্যতিক্রম নয়।

১৯৯২ সালের বিশ্বকাপের মধ্য দিয়ে টেলিভিশনে সম্প্রচার শুরু হলেও ক্রিকেটে ধরতে গেলে সবচেয়ে আধুনিক প্রযুক্তিগুলো ব্যবহার করা হচ্ছে এবারের বিশ্বকাপেই। সারা পৃথিবীর সব মানুষের জন্য আসলে পশ্চিমের দেশ ব্রিটেনে গিয়ে খেলা দেখে সম্ভব নয়। সেজন্যেই আইসিসি এবার ঘরে বসেই যেন সবাই মাঠে বসে খেলা দেখার অনুভূতি গ্রহণ করতে পারে সে লক্ষ্যে ‘স্টেট অব দ্য আর্ট’ পদ্ধতিতে পুরো বিশ্বকাপ কভারেজ করার সিদ্ধান্ত নিয়েছে। প্রযুক্তি এবং ক্যামেরার মিশেলে এবারের বিশ্বকাপ হতে যাচ্ছে সবচেয়ে আকর্ষণীয় একটি বিশ্বকাপ।

বিশ্বকাপের আগেই ক্রিকেটে হক-আই, হট স্পট, স্নিকোমিটার, বল স্পিডোমিটার কয়েক বছর ধরেই ব্যবহার হচ্ছে। বর্তমান সময়ে তো ওয়ানডেতে ডিসিশন রিভিউ সিস্টেম দ্বিপাক্ষিক সিরিজে বাধ্যতামূলক করছে।

আইসিসির টিভি প্রোডাকশন হাউজ ৪৬ দিনে ৪৮টি ম্যাচ কভার করবে পাশাপাশি ওয়ার্ম আপ ম্যাচগুলোসহ। প্রত্যেকটি ম্যাচে ৩২টি করে ক্যামেরা পুরো স্টেডিয়ামে লাগানো থাকবে। এতে খেলোয়াড়দের মুভমেন্ট, বল নিয়ে নাড়াচাড়া করা, ব্যাটসম্যানদের অঙ্গভঙ্গি, আম্পায়ারদের অবস্থান, স্লো মোশন, স্টেডিয়ামের দর্শকদের উন্মাদনার দিকে বিশেষ করে নজর রাখা হবে ভিন্ন ভিন্ন কয়ামেরার মাধ্যমে।

৮টি থাকবে স্লো মোশন হক-আই ক্যামেরা যেগুলো দিয়ে ডিসিশন রিভিউ সিস্টেম পর্যবেক্ষণ করা হবে। এর কয়েকটা থাকবে সামনে এবং কয়েকটা থাকবে স্ট্যাম্পের পেছনে। সঙ্গে এবারের বিশ্বকাপে দেখা যাবে স্পাইডার ক্যামেরাকেও।

প্রথমবারের মত এবারের বিশ্বকাপে থাকছে ৩৬০ ডিগ্রি রিপ্লে পদ্ধতি। যেগুলোতে ব্যবহার করা হবে বিভিন্ন ধরণের উন্নত প্রযুক্তির ক্যামেরা এবং যার সাহায্যে খুব সহজেই একজন খেলোয়াড়ের মাঠের মধ্যকার পারফরম্যান্সের খুঁটিনাটি এনালাইসিস খুব ভালোভাবে করতে পারবেন সবাই।

পুরো মাঠে খেলোয়াড়দের চলাচল এবং তাদের বিষদ এনালাইসিস করার জন্য মাঠের ক্যামেরা গুলোর সঙ্গে বিশেষ টুলস যোগ করা থাকবে যা দিয়ে সবকিছু পর্যবেক্ষণ করা যাবে। তাছাড়াও হক-আইতে গভীরভাবে ক্রিকেট ডাটা এনালাইসিস করার জন্য ক্রিকভিজ নামক এনালাইটিক এপসও সংযুক্ত থাকবে।

প্রত্যেকটি ভেন্যুতেই থাকবে ড্রোন ক্যামেরা। যা দিয়ে স্টেডিয়ামের ভেতরের পাশাপাশি স্টেডিয়ামের বাইরের মনোমুগ্ধকর দৃশ্যগুলোও দর্শকরা বাসায় বসে টিভিতে উপভোগ করতে পারবে।

নতুন ধরণের ক্যামেরা ‘বাগি ক্যাম’ থাকছে এবারের বিশ্বকাপে। মূলত ছোট আকৃতির চার চাকার একটি গাড়িরতে এই ছোট্ট ক্যামেরাটি বসিয়ে গ্রাউন্ডের নিরাপত্তা এবং গভীর পর্যবেক্ষণের জন্য ব্যবহার করা হচ্ছে এটি। এই ক্যামেরাগুলো সাধারণত রিমোটের সাহায্যে চলে। এগুলো ৪০০ মিটার পর্যন্ত উড়তে পারে।

আইসিসি টিভির প্রোডাকশন হাউজের মূল অংশীদার হচ্ছে সানসেট এবং ভাইন সঙ্গে সার্ভিস পার্টনার হিসেবে থাকছে এনইপি ব্রডকাস্ট সলুশন। বিশ্বকাপের গ্রাফিকসের দায়িত্বে থাকছে এলস্টন এলিওট। ম্যাচ শেষ হওয়ার পর থাকছে জিপিএস ট্রাকার দিয়ে খেলোয়াড়দের গতিবিধি নজর রাখার পদ্ধতিও।

আইসিসির মিডিয়া, ব্রডকাস্ট ও ডিজিটাল রাইটসের প্রধান আরতি দাবাস বলেন, ‘আমি খুব অধীর আগ্রহে অপেক্ষা করছি বিশ্বকাপের এবারের সম্প্রচার নিয়ে। তারা এবার বিশ্বকাপ ক্রিকেট তথা আইসিসির ইভেন্টটিকে সারা পৃথিবীর বিলিয়ন বিলিয়ন মানুষের  কাছে পৌছে দিবে। আমাদের প্রধান লক্ষ্যই হচ্ছে যারা মাঠে বসে খেলা দেখতে পারবে না, তারা যেন টিভির সামনে বসেই যতটা সম্ভব খেলার কাছাকাছি থেকে উপভোগ করতে পারে। সমর্থকরাই খেলার প্রাণ।’

আইসিসি খেলার পাশাপাশি আবহাওয়াকে নিয়েও ভাবতে হচ্ছে। এজন্য আইবিএম নামক আবহাওয়া কোম্পানির সঙ্গে চুক্তি করেছে তারা। ক্রিকেট.কম এ গিয়ে কোন দর্শক খুব সহজেই ম্যাচটি যেখানে হবে সেখানকার আবহাওয়ার পরিস্থিতি জেনে নিতে পারবে। এবং আবহাওয়া সম্পর্কিত রিপোর্টগুলোও ম্যাচ চলাকালীন সময়ে মাঝে মাঝেই দেখানো টিভির স্ক্রিনে।

ক্রিকেটের অন্যতম জনপ্রিয় ওয়েবসাইট ইএসপিএন ক্রিকইনফো এআই-বেসড ম্যাট্রিক্স সিস্টেমের সঙ্গে বিশ্বকাপের আগেই পরিচয় করিয়ে দিছে সবাইকে; যেই সিস্টেমকে বলা হচ্ছে সুপার স্ট্যাট। এখানে গত ১০ বছরের ক্রিকেট সম্পর্কিত তথ্য এলগরিদমের সাহায্যে সাজানো রয়েছে। এটার তিনটা পার্ট রয়েছে। স্মার্ট স্ট্যাটস, লুক ইন্ডেক্স এবং ফোরকাস্টার। স্মার্ট স্ট্যাটস দিয়ে রান, গড়ের পাশাপাশি বিপক্ষ দলের এই পিচে তাদের অবস্থা ও কোয়ালিটিও জানিয়ে দিবে। লুক ইন্ডেক্স দিয়ে খেলোয়াড়দের ভাগ্য এবং ফোরকাস্টার দিয়ে ভবিষ্যদ্বাণী সংক্রান্ত টুলস ব্যবহার করা হয়েছে যেখানে থাকছে কখন উইকেট পড়তে পারে, কত রান করতে পারবে একটি দল, কে জিততে পারবে।

Facebook Comments


যোগাযোগ

বার্তা ও বানিজ্যিক কার্যালয়

লালমোহন, ভোলা

মোবাইলঃ 01712740138

মেইলঃ jasimjany@gmail.com

সম্পাদক মন্ডলি