LalmohanNews24.Com | logo

৬ই বৈশাখ, ১৪২৬ বঙ্গাব্দ | ১৮ই এপ্রিল, ২০১৯ ইং

প্রধানমন্ত্রীকে মুগ্ধ করলেন ভোলার স্কুল ছাত্রী মালিহা

প্রধানমন্ত্রীকে মুগ্ধ করলেন ভোলার স্কুল ছাত্রী মালিহা

আদিল হোসেন তপু, অতিথি প্রতিবেদক: ভোলা সরকারি বালিকা উচ্চ বিদ্যালয়ের দশম শ্রেণির ছাত্রী মালিহা আক্তার প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনাকে তার মনোমুগ্ধকর বক্তব্যে মুগ্ধ করলেন।

বুধবার  সকালে বঙ্গভবন থেকে ভিডিও  কনফারেন্সের মাধ্যমে ভোলার গ্যাস ভিত্তিক ২২৫ মেগাওয়াট কম্বাইন্ড সাইকেল পাওয়ার প্লান্টের (বিদ্যুৎ কেন্দ্র) উদ্বোধনী অনুষ্ঠানে মালিহা ভোলার শিক্ষার্থীদের প্রতিনিধি হিসেবে বক্তব্য তুলে ধরেন।

ভোলার ডিসির কার্যালয় থেকে প্রধানমন্ত্রীর সঙ্গে ভিডিও কনফারেন্সে যুক্ত হয়ে মালিহা বলেন, যে মহিয়সী নারী মানবতার অগ্রদূত, বিশ্ব শান্তিরদূত, পদ্মা সেতু ও মেট্রো রেল বাস্তবায়ন করেছেন, বঙ্গবন্ধু স্যাটেলাইট উৎক্ষেপণ করেছেন তার সঙ্গে কথা বলতে পারব এটি আমি কখনও কল্পনাও করিনি।

‘আপনি ভোলায় শাহাবাজপুর ও ভেদুরিয়ায় পৃথক দুটি গ্যাসক্ষেত্রকে কেন্দ্র করে বিদ্যুৎ কেন্দ্র স্থাপন করেছেন। শাহাবাজপুর গ্যাসক্ষেত্রকে কেন্দ্র করে ২২৫ মেগাওয়াট ও সাড়ে ৩৬ মেঘাওয়াট ক্ষামতা সম্পন্ন দুটি বিদ্যুৎ কেন্দ্র স্থাপন করেছেন। এ বিদ্যুৎ কেন্দ্র স্থাপিত হওয়ায় আমাদের মত শিক্ষার্থীরা মাল্টিমিডিয়া ক্লাশে ডিজিটাল কন্টেইন এর মাধ্যমে আনন্দের সঙ্গে পড়ালেখা করতে পারছি। কম্পিউটার ল্যাবে আমরা কম্পিউটার দক্ষ হয়ে উঠতে পারছি। এছাড়াও আপনার দক্ষ নেতৃত্বে বাংলাদেশে গত ৯ বছরে বিদ্যুৎ উৎপাদন তিনগুণ বৃদ্ধি পেয়েছে।’

‘বর্তমানে বাংলাদেশের শতভাগ মানুষ বিদ্যুতের সুবিদা পাচ্ছে। আপনি ভোলারও অনেক উন্নয়ন করেছেন, যার কারণে আমরা অনেক উপকৃত হয়েছি এবং আমরা অনেক আনন্দিত। কিন্তু আমরা ভোলাবাসী বাংলাদেশের মূল ভূখন্ড থেকে বিচ্ছিন্ন। তাই ভোলা-বরিশাল ব্রিজ নির্মিত হলে আমাদের সকলের প্রত্যাশা পূরণ হবে। আপনার সুযোগ্য নেতৃত্বেই আমাদের এই প্রত্যাশা পূর্ণ হবে বলে মনে করি। সেই সাথে মাননীয় প্রধানমন্ত্রী আপনাকে ভোলা জেলার সকলের পক্ষ থেকে এ অপরূপ দ্বীপ জেলা ভোলায় আসার আমন্ত্রণ জানাচ্ছি।’

বক্তব্যের শেষে মালিহা প্রধানমন্ত্রীকে নিয়ে কবিতার দুটি চরণ বলে তার কথা শেষ করেন। ‘হে বীর কন্যা শেখ হাসিনা, দেখেছি তোমায় রাজ্য পরিচালনা অপূর্ব এক ধরণ, অন্যায়কে করেছ পরিহার সত্যকে করেছ বরণ’।

মালিহার কথায় প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা মুগ্ধ হয়ে তাকে ধন্যবাদ জানান। সেই সঙ্গে মালিহাকে ভালভাবে পড়ালেখা করার কথা বলেন। যাতে করে আগামীতে ভাল রেজাল্ট করতে পারে।  এরই   মধ্যে ভোলা-বরিশাল ব্রিজ নির্মাণের জন্য সংশ্লিষ্ঠদের নির্দেশ দিয়েছেন বলেও জানান প্রধানমন্ত্রী।

অনুষ্ঠানের শুরুতে ডিসি মাসুদ আলম ছিদ্দিক প্রধানমন্ত্রীকে শুভেচ্ছা জানিয়ে ভোলার বিভিন্ন উন্নয়নমূলক কর্মকাণ্ড তুলে ধরেন। পরে জেলা পরিষদ চেয়ারম্যান ও জেলা আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক আব্দুল মমিন টুলু ভিডিও কনফারেন্সে প্রধানমন্ত্রীর সঙ্গে যুক্ত হন।

অনুষ্ঠানে অন্যান্যদের মধ্যে উপস্থিত ছিলেন, ভোলা-২ আসনের এমপি আলী আজম মুকুল, সিভিল সার্জন ডা. রথিন্দ্র নাথ মজুমদার, সদর ইউএনও মো. কামাল হোসেনসহ সরকারি দফতরের উর্ধ্বতন কর্মকর্তা, রাজনৈতিক নেতাকর্মী, জেলার বিভিন্ন পৌরসভার মেয়র প্রমুখ।

মালিহা তার অনূভতি প্রকাশ করে বলেন, প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার সঙ্গে কথা বলার অনুভূতি  ভাষায় প্রকাশ করতে পারবোনা। স্বপ্নেও কল্পনা করতে পারিনি প্রধানমন্ত্রী মাদার অব হিউম্যানিটি শেখ হাসিনার সঙ্গে কথা বলতে পারবো। এ যেন এক  স্বপ্ন এসে সত্যি রুপে হাজির হয়েছে। প্রধানমন্ত্রী আমাকে ভালো ভাবে পড়াশোনা করার কথা বলেছেন। আমি চেষ্টা করবো পড়াশোনা করে ভালো রেজাল্ট করে মাননীয় প্রধানমন্ত্রীর কথা রাখতে।

সরকারি বালিকা উচ্চ বিদ্যালয়ের দশম শ্রেণির ছাত্রী মালিহা ক্লাশে রোল নম্বর-১। তার বাবা ব্যবসায়ী মো. আকতার মনজু ও মা বিবি মরিয়ম এর অনুপ্রেরণায় সকল ভালো কাজে উৎসাহ দেয় বলে জানায় মালিহা। মালিহা স্বপ্ন দেখে ভবিষ্যতে একজন ডাক্তার হয়ে মানুষের সেবা করার। সে স্কুলে একজন ভালো বির্তাকিক।

 

হাসান পিন্টু

Facebook Comments


যোগাযোগ

বার্তা ও বানিজ্যিক কার্যালয়

লালমোহন, ভোলা

মোবাইলঃ 01712740138

মেইলঃ jasimjany@gmail.com

সম্পাদক মন্ডলি