LalmohanNews24.Com | logo

৩১শে জ্যৈষ্ঠ, ১৪২৮ বঙ্গাব্দ | ১৪ই জুন, ২০২১ খ্রিস্টাব্দ

চরফ্যাসনের চর কুকরী-মুকরীতে চালু হচ্ছে ইকো-পার্ক

চরফ্যাসনের চর কুকরী-মুকরীতে চালু হচ্ছে ইকো-পার্ক

ভোলার পর্যটনদ্বীপ চরফ্যাসনের চর কুকরী-মুকরী ইকো-পার্ক মহামান্য রাষ্ট্রপতি মো.আবদুল হামিদ বৃহষ্পতিবার সকালে আইল্যান্ড অফ ভোলা খ্যাত দ্বীপকন্যা চর কুকরী-মুকরীতে ইকো-পার্কের উদ্বোধন করবেন। উদ্বোদনের পর পর্যটকদের জন্য ইকোপার্ক উন্মুক্ত করে দেওয়া হবে।

ইকো-পার্কের উদ্বোধন সাগরপাড়ের পর্যটনক্ষেত্রে নতুন মাত্রার যোগ করবে। রাষ্ট্রপতির আগমনকে কেন্দ্র করে সাগরের ঢেউ আছঁড়ে পড়া কুকরী-মুকরীকে বর্ণিল সাজে সজ্জিত করা হয়েছে। উৎসব মুখর পরিবেশ বিরাজ করছে দ্বীপের খেটে খাওয়া মানুষের মধ্যে। চরফ্যাসন উপজেলা নির্বাহী অফিসার মোহাম্মদ মনোয়ার হোসেন এই তথ্য নিশ্চিত করেছেন।

ভোলা জেলা সদর থেকে ১শ ৭০ কিমি এবং চরফ্যাসন উপজেলা সদর থেকে প্রায় ১শ’ কিমি দক্ষিণে বঙ্গোপসগারের কূলঘেঁষে সাগরকন্যা কুকরী-মুকরী পর্যটনদ্বীপের অবস্থান। প্রায় ২০ বর্গ কিমি আয়তনের ম্যানগ্রোভ বাগানসহ ৪০বর্গ কিমি আয়তনের কুকরী-মুকরী একটি ইউনিয়ন। জালের মতো ছড়িয়ে থাকা ম্যানগ্রোভ বাগান, সাগরের ঢেউ আছঁড়ে পড়া বিস্তৃত সৈকত, হরিণ- বানরসহ নানান প্রজাতির বন্যপ্রাণীর কিচির মিচির, শিয়ালের হাঁক, শীতের অতিথি পাখির কলকাকলী পর্যটকদের আকর্ষণ করছে এই দ্বীপ।

জাতির জনক বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান ১৯৭৩ সনের ১৩ ডিসেম্বর কুকরী-মুকরী সফর করেন এবং কুকরী-মুকরীর প্রাকৃতিক সৌন্দর্যে মুগ্ধ হয়ে দ্বীপটিকে পর্যটন কেন্দ্র হিসেবে গড়ে তোলার আগ্রহ প্রকাশ করেন। জাতির জনকের স্বপ্নের পর্যটন কেন্দ্র গড়ে তোলার সেই সুদূর প্রসারী চিন্তার ধারাবাহিকতায় যাত্রা শুরু করতে যাচ্ছে কুকরী-মুকরী ইকো-পার্ক।

চর কুকরী-মুকরীর চেয়ারম্যান হাসেম মহাজন জানান, কুকরী-মুকরী ইকো-পার্কে বঙ্গবন্ধুর ম্যূড়াল, হরিণ প্রজনন কেন্দ্র, ১শ’ফুট উচ্চতার ওয়াচ টাওয়ার, শিশুদের জন্য বিভিন্ন ধরনের রাইড, ম্যানগ্রোভ বাগানের অভ্যন্তওে ওয়াক ওয়ে, বাগানের খাল আর সাগর কূলে নৌ বিহারের জন্য আধুনিক নৌ-যানসহ পর্যটকদের মনোরঞ্জনের জন্য নানান আধুনিক সুযোগ সুবিধা থাকবে এই ইকো-পার্কে। ইকো-পার্ককে ঘিরে ৫ মেঘাওয়াট ক্ষমতার সৌর বিদ্যুৎ প্লান্ট স্থাপন করা হবে। এই ইকো-পার্ক প্রকল্পে সম্ভাব্য ব্যয় ধরা হয়েছে প্রায় ১১ কোটি টাকা। ইতোমধ্যেই পর্যটকদের জন্য ১০ কোটি টাকা ব্যয়ে ফোর স্টার মানের আধুনিক রেষ্টহাউজ নির্মাণ করা হয়েছে। যে রেষ্টহাউজে শীতাতপ নিয়ন্ত্রন ব্যবস্থা, হেলিপ্যাড, টেনিস কোর্ট এবং সুইমিংপুল আছে। বুধবার বিকেলে কুকরী-মুকরী পৌঁছে রাষ্ট্রপতি মো. আবদুল হামিদ এই রেষ্টহাউজে রাত্রীযাপন করবেন বলে জানা গেছে।

চরফ্যাসন প্রেসক্লাবের সাধারন সম্পাদক মনির আহমেদ শুভ্র জানান, বিশ্বখ্যাত আইফেল টাওয়ারের আদলে নির্মিত হয়েছে এই “জ্যাকব টাওয়ার”। এটি চরফ্যাসনসহ ভোলাকে আলাদা পরিচিতি দেবে বলে আশা করছি। চরফ্যাসনের দক্ষিণে সাগর মোহনার বিচ্ছিন্ন দ্বীপ চর কুকরি-মুকরি, ঢালচর, তারুয়া সৈকত প্রকৃতির এক অপার সৃষ্টি। কয়েক বছরে ওই স্পটগুলো ভ্রমণপিপাসুদের কাছে আকর্ষণীয় হয়ে উঠেছে। ঢাকাসহ দেশের বিভিন্ন প্রান্ত থেকে মানুষ আসছেন ওইসব এলাকায়। চর কুকরী-মুকরীর ম্যানগ্রোভ বনাঞ্চলে রয়েছে হরিণ, বানর, বন মোরগসহ নানা সাপ ও বন্যপ্রাণী। রয়েছে বন বিভাগের গবেষনা কেন্দ্র কিন্তু পর্যটকদের আকর্ষণ করার মতো কোন স্থাপনা গড়ে ওঠেনি সেখানে। প্রাকৃতিকভাবে গড়ে ওঠা অপার সৌন্দর্যের পাশাপাশি আধুনিক বিজ্ঞান ও প্রযুক্তিকে কাজে লাগিয়ে পর্যটকদের কাছে আরও আকর্ষণীয় করে তুলতে চরফ্যাসনে নির্মিত হচ্ছে “জ্যাকব টাওয়ার” এবং কুকরী মুকরীর ইকো-পার্ক।

এদিকে বুধবার দুপুরে রাষ্ট্রপতি মো.আব্দুল হামিদ ও মিসেস হামিদসহ প্রথমে চরফ্যাসন আসবেন। চরফ্যাসন পৌঁছে রাষ্ট্রপতি উপজেলা সদরে দক্ষিণ-পূর্ব এশিয়ার সুউচ্চ “জ্যাকব টাওয়ার” উদ্বোধন করবেন। পরে চরফ্যাসন টিবি স্কুল ময়দানে সুধী সমাবেশে প্রধান অতিথির বক্তব্য রাখবেন রাষ্ট্রপতি।

সুধী সমাবেশ থেকে চরফ্যাসনের অধ্যক্ষ নজরুল ইসলাম কলেজ, রহিমা ইসলাম কলেজ, চরফ্যাসন অধ্যক্ষ নজরুল ইসলাম টিসার্স ট্রেনিং কলেজ-এর একাডেমিক ভবন, এওয়াজপুর-রসূলপুর মৈত্রি সেতুসহ বেশ কিছু উন্নয়ন কাজের ফলক উম্মোচন করবেন। বৃহস্পতিবার বিকেলে রাষ্ট্রপতি পর্যটনদ্বীপ চর কুকরী-মুকরীর উদ্দেশ্যে চরফ্যাসন সদর ত্যাগ করবেন।

হাসান পিন্টু

 

Facebook Comments Box


যোগাযোগ

বার্তা ও বানিজ্যিক কার্যালয়

লালমোহন, ভোলা

মোবাইলঃ 01712740138

মেইলঃ jasimjany@gmail.com

সম্পাদক মন্ডলি

error: সাইটের কোন তথ্য কপি করা নিষেধ!! মোঃ জসিম জনি