LalmohanNews24.Com | logo

২৮শে চৈত্র, ১৪২৭ বঙ্গাব্দ | ১২ই এপ্রিল, ২০২১ খ্রিস্টাব্দ

চরফ্যাশনে হামলার শিকার বিজিবি সদস্যের পরিবার

চরফ্যাশনে হামলার শিকার বিজিবি সদস্যের পরিবার

চরফ্যাসন প্রতিবেদক: চরফ্যাশনের নজরুল নগরে শিশু নির্যাতন ঘটনার মামলাকে কেন্দ্র করে একের পর এক হামলা মামলার শিকার বিজিবি সদস্যের পরিবার। এমন ঘটনায় প্রতিকার চেয়ে থানা, এসপি ও নারী শিশু নির্যাতন আদালতে মামলা দায়ের করেও কোনো সুবিচার পায়নি পরিবারটি। তাদের এ হামলা মামলার প্রতিকার চেয়ে সংবাদকর্মীদের কাছে লিখিত অভিযোগ করেন নির্যাতিত পরিবারটি।
অভিযোগ সূত্রে জানা যায়, চরফ্যাশন উপজেলার দক্ষিণ আইচা থানাধীন নজরুল নগর ইউনিয়নের ৪নং ওয়ার্ডের সামসুদ্দিন এর ছেলে আলামিন (১০) কে একই এলাকার আঃ হাই এর ছেলে হারুন ও সিরাজ সহ ৪ জন মিলে গত ২৫/১০/২০ইং তারিখে রাত ১২টায় সুপারি চুরির অপবাদে তাদের বাড়িতে নিয়ে গাছের সাথে বেঁধে বেদম নির্যাতন করে। আহত অবস্থায় তাকে উদ্ধার করে চরফ্যাশন হাসপাতালে ভর্তি করেন। এঘটনায় শিশু আলামিনের মা নাজমা বাদী হয়ে হারুন, সিরাজ ও আওলাদসহ ৩ জন বিবাদী করে ভোলা জেলা নারী ও শিশু নির্যাতন দমন ট্রাইবুনাল আদালতে মামলা দায়ের করেন। যার নং ৬৯৪/২০, তারিখঃ ০৫/১১/২০ইং। ওই মামলায় দক্ষিণ আইচা থানার ওসিকে এফআইআর করে তদন্ত সাপেক্ষে মামলার আইনগত ব্যবস্থা নেয়ার নির্দেশ দেয়। থানা পুলিশ একটি অসত্য প্রতিবেদন দাখিল করেন। যা ঘটনার সাথে কোন মিল নেই। এতে আসামীরা আরো ক্ষিপ্ত হয়ে একের পর এক হামলা চালিয়ে যাচ্ছে বীরদর্পে।
এরই ধারাবাহিকতায় গত ২৯/১০/২০২০ইং তারিখে বাদী নাজমার ছেলে ইমন (২২) কে স্থানীয় বজলু বাজারে এলোপাথারি মারধর করে। এর প্রতিবাদ করায় বিভিন্ন ভয়ভীতি ও হুমকি ধামকি দেয়। এতে আহত ইমন বাদী হয়ে দক্ষিণ আইচা থানায় একটি জিডি করেন। যার নং- ৬২, তারিখঃ ০২/১১/২০ইং।
এতেও তারা ক্ষ্যন্ত হননি। গত ০৬/০৩/২১ইং তারিখে বাদীনি নাজমার বসত বাড়িতে বিবাদী হারুন সহ ৪/৫ জন মিলে অনধিকার প্রবেশ করে মারধর করে নির্যাতনের চেষ্টা করে। এতে নাজমা বাদী হয়ে হারুন সহ ৩ জনকে বিবাদী করে দক্ষিণ আইচা থানায় একটি অভিযোগ করেন। যার নং- ১৭৫, তারিখঃ ০৬/০৩/২১ইং।
এছাড়া গত ০২/০৪/২১ইং তারিখ সন্ধ্যায় বাদীনির স্বামী সামসুদ্দিন বাড়ি হতে মসজিদে যাওয়ার সময় উক্ত মামলার বিবাদীরা ঐক্যবদ্ধ হয়ে এলোপাথারি মারধর করে। তার ডাকচিৎকার দিলে স্থানীয়দের সহায়তায় বাদীনি নাজমা তাকে উদ্ধার করে চরফ্যাশন হাসপাতালে ভর্তি করে। সংবাদ পেয়ে বাদীনির ছেলে বিজিবি’র সদস্য দুলাল হাসপাতালে ছুটে গেলে সেখানেও হাসপাতালে প্রবেশ মুখে হামলাকারীরা তাকে বেদম মারধর করে। এঘটনায় মামলার প্রস্তুতি চলছে। বাদীনির অভিযোগ প্রতিপক্ষের হুমকি ধামকির কারণে আইনগত ব্যবস্থা নিতে বাধাগ্রস্থ হচ্ছে।
এঘটনায় প্রতিপক্ষের হারুন গংদের কাছে জানতে চাইলে তারা জানায়, নাজমা গংরা আমাদেরকে বিভিন্ন মিথ্যা মামলা দিয়ে হয়রানি করছে। আমাদের বিরুদ্ধে আনিত অভিযোগ ভিত্তিহীন। তারাও আমাদের উপর বিভিন্ন সময় হামলা করে।
দক্ষিণ আইচা থানার অফিসার ইনচার্জ হারুনুর রশিদ জানান, বিষয়টি সম্পর্কে জেনেছি। লিখিত অভিযোগ পেলে আইনগত ব্যবস্থা নেবো।
Facebook Comments Box


যোগাযোগ

বার্তা ও বানিজ্যিক কার্যালয়

লালমোহন, ভোলা

মোবাইলঃ 01712740138

মেইলঃ jasimjany@gmail.com

সম্পাদক মন্ডলি

error: সাইটের কোন তথ্য কপি করা নিষেধ!! মোঃ জসিম জনি