LalmohanNews24.Com | logo

৩রা পৌষ, ১৪২৫ বঙ্গাব্দ | ১৬ই ডিসেম্বর, ২০১৮ ইং

গ্যাস্ট্রিক সমস্যা সমাধানে…

গ্যাস্ট্রিক সমস্যা সমাধানে…

কমবেশি প্রত্যেকেই গ্যাষ্ট্রিকের সমস্যায় ভুগে থাকে।মূলত খাবারের অনিয়ম এ সমস্যার মূল কারণ। গ্যাস্ট্রিক থেকে আলসার এমনকি হার্টের সমস্যাও দেখা দিতে পারে। তাই এ সমস্যা নির্মূলে করণীয় কী তা জেনে নিন-

১. গ্যাস্ট্রিকের সমস্যা থাকলে ডালজাতীয় খাবার খাওয়া ঠিক নয়। যেমন: ডাল, বুট, ছোলা, সয়াবিন ইত্যাদি। কারণ এ খাবারগুলোতে প্রোটিন ও ফাইবার রয়েছে। যার ফলে হজম হতে সমস্যা হয়।

২. শীতকালীন সবজি বাঁধাকপি বা ফুলকপি খেলে প্রচুর গ্যাসের সমস্যা দেখা দেয়। আর যদি খেতেই হয় তবে কম খেতে হবে। কারণ এ সবজিগুলোতে রাফিকোন নামক এক ধরণের সুগার জাতীয় উপাদান থাকে। যা পেটে গ্যাসের সৃষ্টি করে থাকে।

1.গ্যাস্ট্রিক সমস্যা সমাধানে…

৩. অনেকেরই দুধ বা দুগ্ধ জাতীয় খাবার খেলে পেটে গ্যাসের সমস্যা দেখা দেয়। তারা দুধ খাওয়া থেকে বিরত থাকতে হবে। কারণ যাদের এ সমস্যা রয়েছে তারা হলেন ল্যাক্টো ইন টলারেট। আর যদি একেবারেই দুধ না খেতে হয় তবে ফ্রিজে রাখা ঠান্ডা দুধ খেতে পারেন। তবে গ্যাসের সমস্যা কিছুটা কম হবে।

৪. আপেল ও পেঁয়ারাতে প্রচুর পরিমাণে ফুট্রোজ ও ফাইবার থাকে যা পাকস্থলি সহজে হজম করতে পারে না। আর রাতে তো কোনো ফল খাওয়া ঠিক না।এতে গ্যাসের সমস্যা আরো বেড়ে যায়।

৫. লবণাক্ত খাবার বেশি পরিমাণে খাওয়া যাবে না। কারণ লবণে প্রচুর সোডিয়াম থাকে। এ সোডিয়াম শরীরের পানি শোষণ করে থাকে। আর এ লবণ গলে শরীরে একটা অতিরিক্ত পানি জমা হয়ে থাকে। এটি পাকস্থলিতে জমা হয়ে হজমে সমস্যা দেখা দেয়। হজম ঠিক না হলেই পেটে গ্যাসের দেখা দিবে। তাই অতিরিক্ত লবণ জাতীয় খাবার খাওয়া থেকে বিরত থাকতে হবে।

2.গ্যাস্ট্রিক সমস্যা সমাধানে…

গ্যাস্ট্রিক রোধে কোন খাবারগুলো খাবেন?

১. শসা শরীর ও পেট দুটোকেই ঠান্ডা করে। কারণ এতে রয়েছে ফ্লানায়ড ও অ্যান্টি ইনফ্লামেটরি উপাদান। যা হজমে সাহায্য করে। ফলে গ্যাসের উদ্রেক অনেকটাই কমে যায়।

২. দই হজমশক্তি বৃদ্ধি করে। তাই হজমে কোনো সমস্যা থাকলে দই খেতে পারেন। হজম ভালো হলে পেটে গ্যাসের সমস্যাও হবে না।

৩. পেঁপেতে পাপায়া নামক এক ধরণের এনজাইম থাকে। যা দেহের হজম শক্তিকে বৃদ্ধি করে। নিয়মিত পেঁপে খেলে পেটের অনেক সমস্যায় কমে যাবে।

3.গ্যাস্ট্রিক সমস্যা সমাধানে…

৪. কমলালেবু পাকস্থলির অতিরিক্ত সোডিয়াম দূর করতে সাহায্য করে হজমশক্তি বাড়িয়ে থাকে। এতে হজম ঠিক থাকবে ও পেটে গ্যাসের কোনো সমস্যা থাকবে না।

৫. কলাতে প্রচুর ফাইবার থাকায় কোষ্ঠ-কাঠিণ্য দূর করে। মূলত গ্যাষ্ট্রিকের সমস্যার কারণেই এটি হয়ে থাকে। তাই পেট পরিষ্কার রাখতে ও পেটে যেন কোনো সমস্যা দূর করতে কাঁচা কলা খেতে পারেন।

৬. আদাতে অ্যান্টি-ইনফ্লামেটরি উপাদান থাকে। যা খুব সহজেই খাবার হজম করতে সাহায্য করে। এ কারণে পেটে গ্যাস হওয়ার কোনো সম্ভাবনা থাকে না।

Facebook Comments


যোগাযোগ

বার্তা ও বানিজ্যিক কার্যালয়

লালমোহন, ভোলা

মোবাইলঃ 01712740138

মেইলঃ jasimjany@gmail.com

সম্পাদক মন্ডলি