LalmohanNews24.Com | logo

৫ই চৈত্র, ১৪২৫ বঙ্গাব্দ | ১৯শে মার্চ, ২০১৯ ইং

ওদের কে দেখবে?

ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের বিবিএ ফাইনালের ছাত্র কাওসার আহমেদ। অনেকটা আগেভাগেই বিয়ে করিয়েছিলেন পরিবার। সেই কাওসার-মুক্তি দম্পতির কোলজুড়ে আসে যমজ সন্তান। ফুটফুটে দু’ছেলে।

পরিবারকে বাড়তি একটু সহায়তার জন্যই কাওসার চুরিহাট্টায় ব্যবসা শুরু করেন। ফার্মেসির ব্যবসা, মদিনা মেডিকেল হল নামে। যৌথ ব্যবসায় সময় দেয়া লাগে বেশি। তাই বেশিরভাগ সময়ই থাকেন দোকানে।

অন্যান্য দিনের মতো বুধবারও দোকানে যান কাওসার। ঘর ছেড়ে সেই যাত্রা যে তার শেষযাত্রা। ভয়াবহ আগুনে জীবন্ত দগ্ধ হয়েছেন কাওসার।

বৃহস্পতিবার সকাল থেকে চুড়িহাট্টার এপ্রান্ত থেকে ওপ্রান্তে খুঁজে বেড়িয়েছেন মা, বড় ভাই ইলিয়াস ও স্ত্রী মুক্তা। পরে ঢাকা মেডিকেলের মর্গে মেলে তার সন্ধান।

মুক্তার কোলে যমজ ছেলে। ফ্যালফ্যাল করে দেখছেন এদিকে-ওদিক। হয়তো খুঁজছেন বাবাকে।

মর্গের সামনে কাঁদতে কাঁদতে ইলিয়াস বলেন, ভাইয়ের লাশ খুঁজতে এসেছি। কিন্তু এখন পর্যন্ত পাইনি।

মর্গের সামনেই বারবার মূর্ছা যান কাওসারের স্ত্রী মুক্তি। জ্ঞান আসতেই বিলাপ, ‘তুমি, কি করে আমাদের ছেড়ে চলে গেলে? ওরা (যমন শিশু) বাবা বাবা করছে। তোমার ডাক শুনতে না পেয়ে কান্না করছে। ফিরে আস?’

মায়ের কান্না দেখে যমজেরা ঠিক কি হয়েছে, বুঝে উঠতে পারছে না। অশ্রুসিক্ত মাকেই দেখছে। মা বলছেন, অবুঝ দুই বাচ্চার কি হবে? কে দেখবে ওদের?’

চুড়িহাট্টা শাহী মসজিদের পেছনের ভবনে আগুন লাগে। ওই ঘটনায় এখন পর্যন্ত ৭৮টি মরদেহ উদ্ধার করা হয়েছে। তবে ফায়ার সার্ভিস বলছে, ৮০ থেকে ৮১ মৃত দেহ হবে। আর মেয়র উদ্ধার সমাপ্ত করে ৭০ জনের মৃত্যুর খবর নিশ্চিত করেন। কিন্তু শিল্প মন্ত্রণালয় বলছে, ৬৭টি মরদেহ উদ্ধার করা হয়েছে।

লালমোহননিউজ/ হাসান পিন্টু

Facebook Comments


যোগাযোগ

বার্তা ও বানিজ্যিক কার্যালয়

লালমোহন, ভোলা

মোবাইলঃ 01712740138

মেইলঃ jasimjany@gmail.com

সম্পাদক মন্ডলি