LalmohanNews24.Com | logo

১১ই ফাল্গুন, ১৪২৬ বঙ্গাব্দ | ২৩শে ফেব্রুয়ারি, ২০২০ ইং

অন্তিম শয়নে গনমানুষের মহানায়ক এনায়েত কবীর, জানাযায় শোকার্ত জনতার ঢল

এম ইউ মাহিম এম ইউ মাহিম

বিশেষ প্রতিনিধি

প্রকাশিত : মে ১৫, ২০১৯, ১৯:১৯

অন্তিম শয়নে গনমানুষের মহানায়ক এনায়েত কবীর, জানাযায় শোকার্ত জনতার ঢল

অন্তিম শয়নের আগে প্রমাণ করে গেলেন কত বড় গণমানুষের নেতা ছিলেন এনায়েত কবীর পাটোয়ারী। লালমোহন বালক মাধ্যমিক বিদ্যালয় মাঠের  জানাজায় ছিল শোকার্ত মানুষের ঢল। বুকফাটা কান্না, আর্তনাদ আর আহাজারিতে লাখো মানুষের শ্রদ্ধা-ভালোবাসায় বিদায় নিলেন এনায়েত কবীর।
যে স্কুল মাঠে হল তার শেষ যাত্রা এ স্কুলেরই তিনি ছাত্র ছিলেন,একসময় স্কুল ব্যবস্থাপনা কমিটির সভাপতি হিসেবেও দায়িত্ব পালন করেন। কৈশোরের স্মৃতিবিজড়িত মাঠে তার শেষ যাত্রায় স্কুলের আশে পাশের সবুজ বৃক্ষরাজিও যেন নিরবে কেঁদে বিদায় জানিয়েছে গণমানুষের এই নয়নমনিকে। তাঁর  লাশের খাটিয়া স্কুলের আঙ্গিনায় পৌঁছার  পর পুব আকাশে কিছু মেঘ জমে যেন জানান দিয়েছে, এ গণমানুষের নেতার শেষ বিদায়ে প্রকৃতিও  যেন নিরবে কাঁদছে ।
পরিচ্ছন্ন, দক্ষ সংগঠক ও কর্মীবান্ধব নেতা হিসেবে তিনি যে জনপ্রিয় ছিলেন তাঁর  জানাযায় আসা শোকার্ত মানুষের ঢলই সে প্রমাণ দিয়েছে।জানাযায় দলমত নির্বিশেষে উপজেলা বিএনপি আ.লীগ সহ সকল রাজনৈতিক দলের সর্বস্তরের নেতাকর্মীরাসহ সাধারণ জনতা অংশ নেন।দলীয় নীতি আদর্শে আমৃত্যু অটল থাকলে যে মানুষের হৃদয়ে জায়গা করে নেওয়া যায় তাঁর জানাযায় শোকার্ত মানুষের ঢলই তার প্রমাণ করে।
শেষ যাত্রায় জনতার বাঁধ ভাঙা ঢল ও বেদনাবিধুর চিত্তে লালমোহন বাসী তাকে বিদায় জানিয়েছেন।রাজনীতিতে তার নির্লোভ মানসিকতা আর বিচক্ষণতায় নিজেকে স্থানীয় রাজনীতিতে অন্য উচ্চতায় নিয়ে যাওয়া এনায়েত কবীর শেষ যাত্রায় শ্রদ্ধা পেয়েছেন রাজনৈতিক প্রতিপক্ষের কাছ থেকেও। স্বজন-আপনজন ও দীর্ঘদিনের রাজনৈতিক সহকর্মীদের কাঁদিয়ে  ও লাখো মানুষের হৃদয় নিংড়ানো ভালবাসায় সিক্ত হয়ে পারিবারিক কবরস্থানেই চিরনিদ্রায় শায়িত হলেন এই বর্ণাঢ্য  রাজনীতিক।
স্থানীয়রা জানান, এনায়েত কবীর ছিলেন স্থানীয় বিএনপির ভরসার বাতিঘর, তাঁর মৃত্যুতে স্থানীয় রাজনীতিতে নেতৃত্বের শূন্যতা কোনদিন পূরণ হওয়ার নয়। তিনি বিএনপির প্রতিষ্ঠাকালীন সময়ে জাগদল হতে শুরু করে মৃত্যুর আগ পর্যন্ত বিএনপির রাজনীতির সাথে সম্পৃক্ত ছিলেন।সর্বশেষ উপজেলা বিএনপির সভাপতি হিসেবে দায়িত্বে ছিলেন। তিনবার পৌরসভার মেয়র  ছিলেন।
 রাজনৈতিক,সামাজিক,সাংস্কৃতিক,শিক্ষা , ও জনকল্যাণমুলক কাজে তিনি নিজেকে জীবনের পুরোটি সময় নিয়োজিত রেখেছিলেন। তিনি খুব বড় মনের মানুষ ছিলেন, দানশীল ব্যক্তি হিসেবেও তার যথেষ্ট  খ্যাতি ছিল। কেউ তাঁর নিকট কখনো এসে উপেক্ষিত হন নি। সিনিয়রদের খুব ইজ্জত সম্মান দিয়ে চলতেন। সম্মানিত লোকদের সবসময় সম্মান করতেন। তিনি বাজার ব্যবসায়ী সমিতির সভাপতি ছিলেন। একাধিক শিক্ষা প্রতিষ্ঠানের ব্যবস্থাপনা কমিটির সভাপতি হিসেবে দায়িত্ব পালন করে শিক্ষা ক্ষেত্রেও তিনি গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা পালন করেন। তাঁর অবদান এলাকাবাসী গভীর শ্রদ্ধার সাথে আজীবন স্মরণ রাখবে। তিনি বেঁচে থাকবেন তার কর্মে, মানুষের হৃদয়ে সমুজ্জল থাকবেন প্রেরণার বাতিঘর হিসেবে।
তাঁর জানাযার আগে সংক্ষিপ্ত বক্তব্য স্মৃতিচারণ করে বক্তব্য রাখেন সাবেক মন্ত্রী ও সাংসদ বিএনপির নির্বাহী কমিটির ভাইস চেয়ারম্যান আলহাজ্ব মেজর (অব.)হাফিজ উদ্দীন আহম্মেদ বীরবিক্রম,স্থানীয় সাংসদ আলহাজ্ব নূরন্নবী চৌধুরী শাওন এমপি।
উল্লেখ্য গতকাল রাত ৯টা ৪৫মিনিটে মরহুম এনায়েত কবীর পাটোয়ারী হৃদযন্ত্রের ক্রিয়া বন্ধ হয়ে নিজ বাসায় শেষ নিঃশ্বাস ত্যাগ করেন।

 

লালমোহননিউজ/ এইচ.পি

Facebook Comments


যোগাযোগ

বার্তা ও বানিজ্যিক কার্যালয়

লালমোহন, ভোলা

মোবাইলঃ 01712740138

মেইলঃ jasimjany@gmail.com

সম্পাদক মন্ডলি

error: সাইটের কোন তথ্য কপি করা নিষেধ!! মোঃ জসিম জনি